অস্ট্রেলিয়ায় বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠা মাল্টিকালচারাল সমাজেরই প্রতিফলন: মোহাম্মদ তারিক

প্রকাশিতঃ ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, শুক্র, ৬ ডিসেম্বর ১৯

সময় জার্নাল প্রতিবেদক: বাঙালির আচার-ব্যবহার, রীতিনীতি, ভাষা, শিক্ষা, সাহিত্য, চিন্তা, চেতনা, কৃষ্টি এবং সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ পরবর্তী প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে সাউথ অস্ট্রেলিয়ার এডিলেইড সিটির উত্তরে বাংলাদেশী কমিউনিটি স্কুলের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। স্কুলটির উদ্যোক্তা সাউথ অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী কমিউনিটি এসোসিয়েশন (সাবকা)। সাবকা পরিচালিত এটি তাদের দ্বিতীয় স্কুল। এডিলেইড সিটিতে তারা আরও একটি স্কুল পরিচালনা করে থাকেন।

সাবকার চেয়ারপারসন মোহাম্মদ তারিক জানান, বিদেশের মাটিতে বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠা অস্ট্রেলিয়ার মাল্টিকালচারাল সমাজেরই প্রতিফলন। অস্ট্রেলিয়াতে বাংলাদেশী কমিউনিটির আকার আগের চেয়ে ক্রমশঃ বাড়ছে। যেহেতু বাংলাদেশী পরিবারগুলোর বাস উত্তরের এলাকাতেই বেশি তাই অনেক দিনের প্রত্যাশা ছিল একটা বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠার। আর এ উদ্দেশ্যেই স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। স্থানীয় বাঙালীরা স্কুলটিকে কমিউনিটি হাব হিসেবে বিবেচনা করেন।

স্কুলটি প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য সম্পর্কে মোহাম্মদ তারিক জানান, পরবর্তী প্রজন্ম বাংলা স্কুলের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি সম্পর্কে জানবে এবং বাংলা বর্ণমালা শিখতে পারবে। আসলে আমরা শুধু বাংলা ভাষাই নয়, পুরো বাংলাদেশকেই আমাদের পরবর্তী প্রজন্মের কাছে উপস্থাপন করতে চাই। এডিলেডে আমাদের সংগঠন ছাড়াও আরো তিনটি বাংলা স্কুল আছে।

শিক্ষার্থীরা বাংলা ভাষা শিখতে বেশ আগ্রহী এবং এব্যাপারে অভিভাবকদের দৃষ্টিভঙ্গিও ইতিবাচক জানিয়ে মোহাম্মদ তারিক জানান, পিতামাতারা স্ব-উদ্যোগে বাচ্চাদের নিয়ে আসেন। নিজেরাই অর্থ এবং শ্রম দিয়ে স্কুলটিকে সহায়তা করছেন। তবে স্কুল পরিচালনায় বেশ কিছু চ্যালেঞ্জের কথা উল্লেখ করে তিনি জানান, প্রথমেই যে চ্যালেঞ্জটা ছিল তা হচ্ছে একটা ভেন্যু পাওয়া, কারণ অন্তত তাদের দু’তিনটি ক্লাসরুম এবং অন্যান্য সুবিধা প্রয়োজন, তবে সেই সমস্যাটির সমাধান হয়েছে। দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে আর্থিক, এটিও পিতামাতারা নিজেদের উদ্যোগেই চালিয়ে নিচ্ছেন।

প্রাপ্তবয়স্ক বাংলাদেশী অভিবাসীদের মধ্যে যে নিঃসঙ্গতা কাজ করে, বাংলা স্কুলের মাধ্যমে সামাজিকতা, আন্ত:যোগাযোগের মাধ্যমে তার অনেকটাই লাঘব করা যায় বলে অনেকেই স্কুলটিতে আসতে ভালোবাসেন বলে অভিমত ব্যক্ত করেন মোহাম্মদ তারিক।

তাদের সংগঠন স্কুল কার্যক্রম ছাড়াও অন্যান্য ইভেন্ট পরিচালনা করে থাকে। যেমন- বাংলাদেশের জাতীয় দিবসসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোতে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মাল্টিকালচারাল ইভেন্ট থাকে যেখানে শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

আরও পড়ুন : সাবকার আয়োজনে এবারও অস্ট্রেলিয়ায় উদযাপিত হবে বিজয় মেলা

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ