আইন প্রণয়নের আলোচনায় অংশ নিতে চান না বেশিরভাগ এমপি

প্রকাশিতঃ ৪:৩০ অপরাহ্ণ, বুধ, ২৮ আগস্ট ১৯

সংসদ সদস্যদের বলা হয় আইন প্রণেতা। তবে জাতীয় সংসদে আইন প্রণয়ন সংক্রান্ত আলোচনাতেই সবচেয়ে কম সংখ্যক সংসদ সদস্য অংশ নেন। আইন সম্পর্কিত আলোচনা পর্বে সংসদ সদস্যদের অংশগ্রহণে অনাগ্রহের বিষয়টি উঠে এসেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) এক গবেষণা প্রতিবেদনে।
দশম জাতীয় সংসদের প্রথম থেকে ২৩তম অধিবেশনের (জানুয়ারি ২০১৪ থেকে অক্টোবর ২০১৮) ওপর পরিচালিত ‘পার্লামেন্ট ওয়াচ’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়। বুধবার (২৮ আগস্ট) টিআইবি পরিচালিত এই গবেষণা প্রতিবেদনটি ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে প্রকাশ করা হয়।
টিআইবির গবেষণায় দেখা গেছে, দশম সংসদের ৩৫০ জন সংসদ সদস্যের মধ্যে আইন প্রণয়ন (বাজেট ব্যতিত) আলোচনায় অংশ নিয়েছেন মাত্র ৯৪ জন। তাদের মধ্যে সরকার দলীয় সদস্য ৭১ জন(২৯০ জনের মধ্যে), প্রধান বিরোধী দলের ১৯ জন(৪১ জনের মধ্যে), অন্যান্য বিরোধী দলের ৪ জন(১৯ জনের মধ্যে)।
গবেষণা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, দশম সংসদের ২৩টি অধিবেশনে আইন প্রণয়ন কাযক্রমে মোট প্রায় ১৬৮ ঘণ্টা ১২ মিনিট সময় ব্যয় হয়েছে। যা অধিবেশনগুলোর ব্যয় হওয়া মোট সময়ের ১২ শতাংশ। আইন প্রণয়ন কার্যক্রম বিল পাসের আলোচনায় সরকারি দল ১১ শতাংশ, প্রধান বিরোধী দল ৬৭ শতাংশ এবং অন্যান্য বিরোধী দল ২২ শতাংশ সময় ব্যয় করেছে।
দশম সংসদে বিলগুলো উত্থাপন, বিলের ওপর সংসদ সদস্যদের আলোচনা ও মন্ত্রীদের বক্তব্যের ভিত্তিতে একটি বিল পাস করতে গড়ে সময় লেগেছে ৩১ মিনিট। দশম সংসদে ৭১ শতাংশ বিল পাশ হয়েছে এক থেকে ৩০ মিনিটের মধ্যে। যেখানে পাশের দেশ ভারতের ১৬তম লোকসভায় প্রতিটি বিল পাসে গড়ে ১৪১ মিনিট ব্যয় হয়েছে।
খুব অল্প সময়ের মধ্যে আইন পাশ হওয়ার ফলে সংসদ সদস্যরা আইনটি সম্পর্কে ভালোভাবে পড়েছেন কিনা তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।
তিনি বলেন, আইন প্রণয়নে খুব কম সময় ব্যয় করা হয়েছে। যেখানে যুক্তরাষ্ট, ভারতে অনেক বেশি সময় ব্যয় করা হয়।
দশম জাতীয় সংসদ সম্পর্কে সার্বিক পর্যালোচনায় তিনি বলেন, ‘আশা জাগানিয়ার মতো কিছু দেখিনি।’
উল্লেখ্য, জাতীয় সংসদে ১৯৩ টি সরকারি বিশ পাস হয়েছে। এর মধ্যে সংশোধনী বিল ছিল ৫১টি। তবে ১৬টি বেসরকারি বিল উত্থাপিত হলেও কোনোটি পাস হয়নি। বিল উত্থাপন এবং বিলের ওপর সদস্যদের আলোচনা ও মন্ত্রীর বক্তব্যসহ একটি বিল পাস করতে গড়ে প্রায় ৩১ মিনিট সময় ব্যয় হয়েছে। যা অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ