আরও দিতাম, কিন্তু মিডিয়ায় বলল কেন: পাপন

প্রকাশিতঃ ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২২ অক্টোবর ১৯

স্পোর্টস ডেস্ক: বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ধর্মঘট নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ক্রিকেটারদের দাবি ভিত্তিহীন। তাদের সকল দাবি পূরণ করে এসেছি। তাদের প্রয়োজন হলে আরও দিতাম। কিন্তু আমাদেরকে না বলে মিডিয়ার কাছে বলল কেন?

গত সোমবার ১১ দফা দাবিতে সমস্ত ধরনের ক্রিকেট এবং অনুশীলন থেকে বিরত রয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা।

জরুরি বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে পাপন বলেন, ক্রিকেটাররা যে দাবি করেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তাদের চাহিদা আমাদের না বলে মিডিয়ার কাছে কেন বলল? মিডিয়ার কাছে বলার জন্য খবরটা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে গেল। আমাকে আইসিসি থেকে ফোন করে বলছে, বাংলাদেশের ক্রিকেটে নাকি ভয়ংকর কিছু ঘটছে! ভারত সফরটা যদি এবার না হয়, তাহলে আইসিসি শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিবে। এমন গুরুত্বপূর্ণ সফরের আগে এ ধরনের ঘটনা পরিকল্পিত।

তিনি বলেন, আমার বিশ্বাস দেশের ক্রিকেট বন্ধ করার পরিকল্পিত ছক চলছে। কারা কারা এই পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত তাদের আমি চিনি। বাকীদের আইডেন্টিফাই করা হবে। এখন যে তাদের ফিটনেস নিয়ে জোর দিছি, এইটা কি তারা ঠিকভাবে নিছে? তারা এসব কারণেই তো এমন করছে।

ক্রিকেটারদের সুবিধা নিয়ে তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কা সফরের পর তামিম-সাকিবদের বেতন ৫০ হাজার থেকে চার লাখ করেছি। এবং তাদের সুযোগ-সুবিধা সহ ২৪ কোটি টাকা শুধু ওদের বোনাস দিয়েছি।এছাড়া তাদের এত টাকা দেওয়া হয়, এত বেতন দেওয়া হয়; তারপরেও যদি কিছু লাগে আমাকে বলত। এখন এইসব ঢং চলবে না।

তিনি আরও বলেন, কারা তাদের কাছে কাগজ দিয়ে যায়, কারা তাদের কাছে ছবি দিয়ে যায় সব আমি জানি। আপনারাও জানেন। তারা বিসিবিকে গাল দিক, কিন্তু খেলা বন্ধ হবে না? এটার পেছনে কী আছে সেটা আইডেন্টিফাই করা জরুরি। এই প্ল্যানটা হাতেগোনা কয়েকজন জানে। বাকীদের ডেকে এনেছে যে, আমাদের সঙ্গে থাক। এরাই বিভিন্ন মিডিয়ায় মিথ্যা কথা বলে বেড়ায়। এরাই ফেসবুকে ৮-১০টা আইডি খুলে মিথ্যা তথ্য ছড়ায়। এদেরকে আমরা আইডেন্টিফাই করব। কয়েকদিন অপেক্ষা করেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ