উত্তপ্ত চবিতে শাটল ট্রেন বন্ধ, অনির্দিষ্টকালের অবরোধ

প্রকাশিতঃ ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ, রবি, ১ সেপ্টেম্বর ১৯

মধ্যরাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের বিজয় ও সিএফসি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে নগরের বটতলী রেল স্টেশনে অবস্থান করা দুটি শাটল ট্রেনের হোসপাইপ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে করে সকাল সাড়ে ৭টা ও ৮টার নির্ধারিত ট্রেন দুটি ক্যাম্পাসের উদ্দেশে আসতে পারেনি। একইসঙ্গে ট্রেনের লোকো মাস্টারকে অপহরণ করার কিছু সময় পর তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে রোববার ভোরে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহনের সকল শিক্ষক ও স্টাফ বাসের তালায় সুপারগ্লু লাগিয়ে দেয়ায় বাস চলাচলও বন্ধ রয়েছে।

এছাড়া অছাত্র ও হামলার পরিকল্পনাকারী চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার না করা পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের অবরোধের ডাক দিয়েছে চবি ছাত্রলীগের একাংশ।

রোববার সকালে বিজয় গ্রুপের নেতা ও চবি ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এইচ এম তারেকুল ইসলাম এ অবরোধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, শনিবার মধ্যরাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

বিবাদমান দুটি পক্ষ হচ্ছে, বিজয় ও সিএফসি গ্রুপ। তারা শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরীর অনুসারী। বিজয় পক্ষের নেতৃত্বে আছেন সাবেক যুগ্ম সম্পাদক এইচএম তারেকুল ইসলাম ও সিএফসি পক্ষে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল।

জানা গেছে, মধ্যরাতে সোহরাওয়ার্দী হল থেকে এ সংঘাতের এ সূত্রপাত। যা পরে আলাওল ও এএফ রহমান হলেও ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে। পরে এক রাউন্ড গুলি বর্ষণের শব্দও শোনা যায় বলে জানা গেছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ