এক দিনে রেকর্ডসংখ্যাক মৃত্যু ইউরোপের তিন দেশে

প্রকাশিতঃ ১২:২২ অপরাহ্ণ, সোম, ১৬ মার্চ ২০

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে এক দিনে ইতালিতে ৩৬৮, স্পেনে ৯৭ ও ফ্রান্সে ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারি এক দিনে ইউরোপের এই তিন দেশে সবচেয়ে বেশী মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

আজ সোমবার বিবিসি খবরে জানানো হয়, ইউরোপের ওই তিন দেশে এখন মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। ইতালিতে ১ হাজার ৮০৯ জন, স্পেনে ২৮৮ জন ও ফ্রান্সে ১২০ জন মারা গেছে। ইউরোপের আরেক দেশ যুক্তরাজ্যে এক দিনে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট মৃত মানুষের সংখ্যা ৩৫।

ইউরোপজুড়ে সরকাররা নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের চলাচলে বিধিনিষেধ এবং সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে।

অস্ট্রিয়া, সুইজারল্যান্ড, অনলাইনের ,ফ্রান্স ডেনমার্ক লুক্সেমবার্গ ও ডেনমারর্কের সঙ্গে জার্মানি আজ সকাল থেকে নিয়ন্ত্রণব্যবস্থা আরোপ করেছে।

পর্তুগাল স্পেনের সঙ্গে সীমান্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে যাচ্ছে। চেক প্রজাতন্ত্র শহরগুলোয় নাগরিকদের চলাফেরায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে। সেখানে লোকজন কাজে যেতে পারবে, ওষুধ ও খাবার কিনতে পারবে, জরুরি প্রয়োজনে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে পারবে। এর বাইরে অবাধে চলাচল ২৪ মার্চ পর্যন্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

অস্ট্রিয়া পাঁচজনের বেশি লোকের জমায়েত হওয়া আজ থেকে নিষিদ্ধ করেছে। ইউরোপের অনেক দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বৈশ্বিক এই মহামারি বড় ভার এখন ইতালির ঘাড়ে। শুধু লোম্বার্ডিতে আক্রান্ত হয়েছে ২৪ হাজার ৭৪৭ জন এবং মারা গেছে ১ হাজার ২১৮ জন। গত সোমবার থেকে ইতালিতে দেশজুড়ে সবকিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মানুষের চলাচলের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে এবং খাবার ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। স্কুল, জিম, জাদুঘর, নাইট ক্লাব এবং অন্যান্য ভেন্যু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

স্পেনে মোট আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৭ হাজার ৭৫৩। ফ্রান্সে ৫ হাজার ৪০০ জন।

বিশ্বজুড়ে এখন করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ৬২ হাজার ৬৮৭।

 

সময় জার্নাল/সালেহ আহমেদ

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ