এক দুঃষহ ছবিতে স্বামী-স্ত্রী দু’জনই কাহিল

প্রকাশিতঃ ১০:৪২ অপরাহ্ণ, বুধ, ১৬ অক্টোবর ১৯

আমার স্ত্রী বাথরুমে হড়হড় করে বমি করছে। আমি আওয়াজ শুনে দৌড়ে বাথরুমে গিয়ে দেখি সে পুরো বাথরুম বমি করে ভাসিয়ে দিয়েছে। আমি তার মাথাটা চেপে ধরলাম।সে অবস্থায় সে আবার বমি করলো। আমি বমির দৃশ্য সহ্য করতে পারি না, কাউকে বমি করতে দেখলে আমারও বমি চলে আসে। এখানেও ব্যতিক্রম হলো না,আমিও বমি করা শুরু করলাম

কয়েকদিন যাবৎ শরীরে দূর্বলতা অনুভব করছি।ডাক্তার বলেছেন, একটু রেস্ট নিলেই ঠিক হয়ে যাবে।শুয়ে শুয়ে ফেসবুকিং করছি, একটা ছবি দেখে চোখ আটকে গেলো। একটা ছোট্ট শিশুর গলাকাটা লাশ একটা গাছের সাথে ঝুলছে। ছবিটা ঝুম করে বড় করলাম। ছেলেটার গলা কাটা। কানদুটোও কাটা, সাথে তার পুরুষাংও কেটে ফেলা হয়েছে। দুইটা বড় চাকু তার পেটের ভেতরে ঢোকানো!

জীবনে এমন বিভৎস ছবি দেখেছি বলে মনে পরলো না।বাস্তব দূরে থাক, কোন সিনেমায়ও এমন ভয়ংকর দৃশ্য আমার চোখে পড়েনি। আমি ঘামতে শুরু করলাম, শরীর কাঁপতে শুরু করলো। বুঝতে পারছি প্রেসার বেড়ে যাচ্ছে। আমি সোফায় শরীর এলিয়ে দিলাম। মনে হলো যে রুমে বসে আছি, পুরো রুমটা কাঁপছে। আমার মাথা ঘুরতে লাগলো।

আমি মনে মনে চিন্তা করতে শুরু করলাম, আহা! আমি নিজে এই দৃশ্য সহ্য করতে পারছি না, ছেলেটার মা বাবা কীভাবে সহ্য করবে? কোন মা বাবার পক্ষে কি এই দৃশ্য সহ্য করা সম্ভব? কখনোই না।আল্লাহ তুমি তার মা বাবাকে ধৈর্য ধরার শক্তি দাও।

মোবাইলটা হাতে নিলাম পুরো খবরটা পড়ার জন্য। দেখি কোন পাষণ্ড এমন পৈশাচিক কাজটা করেছে। কোন সে হারামীটা এমন নির্মমভাবে মা বাবার বুক খালি করেছে।কে সে? সেই কুলাঙ্গার কি ধরা পড়েছে!!

পুরো খবরটা পড়লাম। আমার মাথা ঘুরতে লাগলো।অন্যকে শায়েস্তা করার জন্য নিজ বাবা তার ঘুমন্ত সন্তানকে কোলে করে নিয়ে এমন পৈশাচিক কান্ড করেছে! সাথে ছিল তার আপন ভাই এবং অন্যান্য আত্মীয় স্বজনরা! অবিশ্বাস্য!!

হায়! সন্তানের সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয় হচ্ছে তার বাবার কোল।এ আমি কী দেখছি!!আমি ঝিম মেরে সোফায় পরে রইলাম।

স্ত্রী রুমে ঢুকে আমার অবস্থা দেখে বললো, কী হয়েছে? শরীর বেশি খারাপ লাগছে? ডাক্তার ডাকবো?

আমি কোন কথা বলতে পারলাম না। মোবাইলটা হাতে নিয়ে স্ত্রীকে বললাম খবরটা পড়ার জন্য। সে এক নিঃশ্বাসে খবরটা পড়লো। মনে হলো সে ঘামতে শুরু করেছে। তার চোখ বড়বড় হয়ে গেছে। সে ওয়াক! ওয়াক! কয়েকবার শব্দ করলো, তারপর দৌড় দিল বাথরুমের দিকে!

বমি করার ফলে আমার চোখ দিয়ে পানি পড়ছে। আমার ছোট্ট মেয়েটা কাছে এসে আমাকে জড়িয়ে ধরে বললো, বাবা, তুমি কাঁদছো কেন? কী হয়েছে তোমার?কেউ কি তোমাকে বকেছে?মা বমি করছে কেন?

আমি কোন কথা বলতে পারলাম না। মেয়েকে আরও শক্ত করে বুকের সাথে জড়িয়ে ধরে বললাম, মাগো! আমরা নষ্ট হয়ে গেছি! আমরা পঁচে গেছি!!

মেয়েটা কী বুঝলো কে জানে।সে আমাকে আরও শক্ত করে বুকে জড়িয়ে ধরলো

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ