এনায়েতপুরে ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, শিক্ষক আটক

প্রকাশিতঃ ৮:৫৬ অপরাহ্ণ, শনি, ৩০ মে ২০

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে চতুর্থ শ্রেনীর এক ছাত্রী শিক্ষকের লালসার শিকারে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে।

শনিবার (৩০ মে) বিকেলে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষক নুরুজ্জামানকে আটক করেছে।

আটক নরুজ্জামান এনায়েতপুর থানার মাঝগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় পাঁচ মাস আগে মাঝগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে একই স্কুলের সহকারী শিক্ষক নুরুজ্জামান ছুটি শেষে স্কুলে থাকতে বলে। পরে ওই ছাত্রীকে শিক্ষক ক্লাস রুমের ভিতরেই
মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। ছাত্রীটি কান্নাকাটি করলে শিক্ষক তাকে ১ শত টাকা দিয়ে ঘটনাটি কাউকে বললে তার বাবা-মাকে হত্যা করা হবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। ভয়ে শিশুটি কাউকে ঘটনাটি বলেনি। এ অবস্থায় কয়েকদিন আগে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার বাবা-মা ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়।

গত মঙ্গলবার (২৭ মে) বেলকুচি বিসমিল্লাহ্ আধুনিক হাসপাতালে মেয়েটির আল্টাস্নোগ্রাফি করা হয়। আল্টাস্নোগ্রাফি রিপোর্টে মেয়েটি ৫ মাসের গর্ভবতী বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

চার সন্তানের জনক একজন শিক্ষকের এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা জানাজানি হবার পর এলাকাজুড়ে মানুষের মধ্যে তীব্রক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক রুখছানা ইসলাম জয়া জানান, এঘটনার সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার নিশ্চিতে নির্যাতিতা স্কুল ছাত্রীকে আমাদের পক্ষ থেকে সকল প্রকার আইনি সহায়তা দেয়া
হবে।

এনায়েতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা মাসুদ পারভেজ জানান, এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করা হয়েছে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।