কবরস্থানে জীবত শিশুকে ফেলে পালালো সিএনজি

প্রকাশিতঃ ৭:৫৫ অপরাহ্ণ, সোম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০

সময় জার্নাল ডেস্ক : সড়কের পাশে কবরস্থানে ৭-৮ মাস বয়সী জীবত শিশুকে ফেলে দিয়ে একটি সিএনজি অটোরিকশা দ্রুত চলে যায়। এসময় নিকটবর্তী এসএসসি পরীক্ষার হলে ডিউটিরত পুলিশ সদস্য তা দেখে ছুটে যান। মুমূর্ষু অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান ওই পুলিশ সদস্য।

সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে খুলশী থানাধীন চট্টগ্রাম সরকারি মডেল স্কুল ও কলেজের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা শিশুটি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রনব চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, চট্টগ্রাম সরকারি মডেল স্কুল ও কলেজের পাশ থেকে একটি ৭-৮ মাস বয়সী মেয়ে শিশুকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভর্তি করা হয়েছে।

উদ্ধার করে শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যান এএসআই মো. হিরণ মিয়া শিশুটিকে উদ্ধার করেন খুলশী থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. হিরণ মিয়া।

তিনি বলেন, দুপুর ১টার দিকে চট্টগ্রাম সরকারি মডেল স্কুল ও কলেজের সামনে পরীক্ষার ডিউটি করছিলাম। খুলশী কলোনি থেকে পলিটেনিক মোড়ের দিকে যাওয়া একটি সিএনজি অটোরিকশা থেকে নেমে এক ব্যক্তি কিছু একটা জিনিস সড়কের পাশে কবরস্থানে ফেলে দিচ্ছিলেন দেখছিলাম। ফেলে দিয়ে সিএনজি অটোরিকশাটি দ্রুত চলে যায়।

এএসআই মো. হিরণ মিয়া আরও বলেন, দৌড়ে গিয়ে তখন শিশুটিকে দেখতে পাই। শিশুটির খুব মুমূর্ষু অবস্থা এবং শরীরে ময়লা দুর্গন্ধ ছিল। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে একটি সিএনজি অটোরিকশা করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাই। শিশুটির শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

ওসি প্রনব চৌধুরী বলেন, কারা বা কী কারণে শিশুটিকে ছুঁড়ে ফেলে গেছে তা খুঁজে বের করতে কাজ করছে পুলিশ। পুলিশ হেফাজতে শিশুটির চিকিৎসা চলছে। শিশুটি সুস্থ হলে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ