কবি নজরুলের একমাত্র ছাত্রাবাস নানান সমস্যায় জর্জরিত

প্রকাশিতঃ ২:৩০ অপরাহ্ণ, সোম, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০

নজরুল কলেজ প্রতিনিধি: কবি নজরুল সরকারি কলেজের একমাত্র শহীদ শামসুল আলম ছাত্রাবাস। যা অবস্থিত পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের ৩নং মোহনী মোহন দাস লেনে।

আবাসিক শিক্ষার্থীদের অভিযোগ রয়েছে, তাদের একমাত্র হলটি নানান সমস্যায় জর্জরিত হয়ে আছে। যা নিয়ে তারা হল প্রসাশনের কাছে লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে নানান আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নাই।

ছাত্রাবাসটিতে ৩৫টি রুমে প্রায় ১২০ জনের আসন থাকলেও এতে প্রায় ২০০ জনের মতো ছাত্র গাদাগাদি করে থাকে।এর মধ্যে গনরুম রয়েছে কয়েকটি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হলের পলেস্তরা গুলো খসে পড়ছে। দেয়াল গুলো রংচটা হয়ে আছে। অনেক স্থানে ফাটল ধরে আছে যা রীতিমতো আতঙ্কের। হলের দ্বিতীয় তলায় পিছনের দিকে ছাদের কিনারায় রেলিং না থাকায় শিক্ষার্থীরা ভয়ে থাকে। এছাড়া হলের সামনের অংশে বহিরাগতদের আড্ডা দিতে দেখা গেছে।

হলের সমস্যা নিয়ে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী দ্বীন ইসলাম বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই রুমের ভিতর পানি পড়ে। এতে আমাদের পড়ালেখার বিঘ্ন ঘটে।

ডিগ্রির শিক্ষার্থী ফরহাদ বলেন, হলে ডাইনিং ব্যবস্থা নেই। আমরা নিজেরাই কোন রকম ডাইনিং ব্যবস্থা করেছি। এজন্য প্রতিমাসে ৪জনকে দায়িত্ব দেয়া হয়। প্রতিদিন দুইবেলা খাবারের আয়োজন করা হয়। প্রতিবেলা খাবারের দাম ৪০টাকার মতো পড়ে।

ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী আরমান বলেন, হলে পর্যাপ্ত বাথরুম নেই। ৪টি বাথরুমের মধ্যে দুইটি বাদ হয়ে আছে। বাকি ২টি আমাদের ২০০জন ছাত্রের জন্য যথেষ্ট নয়। এছাড়া আমাদের হলে নিরাপদ পানি নেই। গোসলখানার সমস্যাতো আছেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, হলের অন্যতম সমস্যা স্থানীয় বখাটে ছেলেরা।এরা হলের সামনে এবং ছাদে ঢুকে আড্ডা দেয়।এমনকি হলের ছাদে মাদক সেবন করে।প্রতিবাদ করলে সাধারন ছাত্রদেরকে হুমকির সম্মুখীন হতে হয়।কলেজ প্রশাসন থেকে হল সুপার দেওয়া হবে বলেও এখনও দেয়নি।নিরাপত্তার অভাব এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে হলটি যেন দিনদিন বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।কলেজ প্রশাসনের কাছে আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি, হল দ্রুত সংস্কার এবং সমস্যা গুলো দূর করে বসবাসের উপযোগী করে তোলবে।

সার্বিক বিষয় কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার বলেন,আমরা হলের সমস্যা গুলো সমাধানে কমিটি গঠন করেছি। দ্রুত সমস্যা গুলো সমাধান হবে বলে আমরা আশাবাদী।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ