কান্না জড়িত কন্ঠে সোলাইমানির জানাজা পড়ান খামেনি

প্রকাশিতঃ ৩:০৯ অপরাহ্ণ, সোম, ৬ জানুয়ারি ২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন সেনাদের হামলায় ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানিসহ নিহত সবার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার রাজধানী তেহরানে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৯টায় এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় ইমামতি করেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি। এতে অংশ নেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রোহানিসহ অন্যান্যরা। ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানাজার সরাসরি সম্প্রচার করে।

পার্সটুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, লাখ লাখ জনতা নিয়ে সোলাইমানির জানাজা পড়ান আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি। এসময় তার চোখে পানি দেখা গেছে।

এর আগে জানাযায় অংশ নিতে ভোররাত থেকে লাখ লাখ মানুষ তেহরান বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে আসতে থাকেন।

এ সময় জনতার হাতে জেনারেল সোলাইমানি ও আবু মাহদি আল-মুহানদিসের ছবি শোভা পাচ্ছিল। তারা ‘আমেরিকা ধ্বংস হোক’, ‘ইসরাইল নিপাত যাক’, ‘আমার ভাইকে যারা মেরেছে তাদেরকে হত্যা করব’ ইত্যাদি স্লোগান দেন।

প্রচণ্ড শীত উপেক্ষা করে অনেকে নিজেদের শিশুসন্তান নিয়ে জানাজায় অংশ নেন।

এর আগে গতরাতে সোলাইমানির মরদেহ মাশহাদ থেকে তেহরানে এসে পৌঁছায়।

তেহরান বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে জানাজার নামাজ শেষে ইরাকে মার্কিন হামলায় নিহত সোলাইমানিসহ বাকি সেনা কর্মকর্তাদের মরদেহ ইরানের দক্ষিণাঞ্চলে ধর্মীয় নগরী কোমে নেয়া হবে।

কোম নগরীতে সোলাইমানির জানাজার নামাজ শেষে তার জন্মস্থান কেরমান প্রদেশে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানেই তার শেষ জানাজার নামাজ শেষে দাফন করা হবে।

শুক্রবার ইরাকের বাগদাদ বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস্ ফোর্স কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানির মৃত্যু হয়। এসময় তার সঙ্গে থাকা ইরাকি মিলিশিয়া কমান্ডার আবু মাহাদি আল-মুহান্দিসসহ অন্তত আটজনের মৃত্যু হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ