কুবির ক্যাফেটেরিয়ার ছাদ যেন ধ্বংসস্তূপ

প্রকাশিতঃ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ, বুধ, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০

মাহমুদুল হাসান : কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের খাবারের জন্য রয়েছে একটি মাত্র ক্যাফেটেরিয়া। যেখানে প্রতিদিন শত শত লোক ভিড় করে খাবারের জন্য, কেউবা যায় গ্রুপ স্টাডি করতে, আবার অনেকেই বিভিন্ন সংগঠনের মিটিং’র জন্য বেছে নেয় ক্যাফেটেরিয়া বা তার ছাদকে। কিন্তু সেই ক্যাফেটেরিয়ার প্রতিই কর্তৃপক্ষের চরম উদাসীনতা লক্ষ করা যায়।

ক্যাফেটেরিয়ার ছাদে এখন নিয়মিতই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সংগঠন বা আঞ্চলিক সংগঠনের পক্ষ থেকে করা হয় বারবিকিউ পার্টি, আয়োজন করা হয় জন্মদিনের বিভিন্ন অনুষ্ঠান। কিন্তু এইসব অনুষ্ঠান বা পার্টি শেষে উচ্ছিষ্ট বিভিন্ন ধরণের ময়লা, ইট, কাঠ, কাঠ পুরানো ছাই, পরিত্যক্ত খাবারের বক্স ইত্যাদি ফেলে ক্যাফেটেরিয়ার ছাদকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে রাখা হয়। আবার কিছু বিপথগামী শিক্ষার্থী রাতের আঁধারে ক্যাফের ছাদে বসেই মাদক সেবন করার অভিযোগও রয়েছে। শিক্ষার্থীরা খাবার শেষে ক্যাফেটরিয়ার ছাদে বসে যে আড্ডা দিবে সেই পরিবেশ এখন আর নেই।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ক্যাফেটেরিয়ার ছাদে কাঠ, কাঠ পুরা ছাই, ইটসহ বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা ফেলে অবস্থা যাচ্ছেতাই করে রেখেছে। হালকা বাতাসেই সেই কাঠ পুরা ছাই এ ক্যাফেটেরিয়ার পরিবেশ ঘোলাটে হয়ে যাচ্ছে।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী মো. সাগর বলেন, ‘ক্যাফের ছাদ এমন নোংরা অবস্থায় দেখে সত্যিই আমার খুব খারাপ লাগছে। প্রায় সময়ই দেখি বিভিন্ন ময়লা আবর্জনা ফেলে ছাদ অপরিচ্ছন্ন করে রাখা হয় অথচ উচিত ছিল তা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে রাখা।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশবাদী সংগঠন অভয়ারণ্য’র সভাপতি রিজোয়ান কবির বলেন, ‘ক্যাম্পাসের সব জায়গাই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা উচিত। আর ক্যাফেটেরিয়া বা তার ছাদতো একটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। যেখানে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সময় গ্রুপ স্টাডি, আড্ডা, গান বাজনা করে থাকে তো এরকম একটা গুরুত্বপূর্ণ জায়গা অপরিচ্ছন্ন থাকবে তা আমাদের জন্য মোটেও সুখকর নয়।’

ক্যাফেটেরিয়ার পরিচালক মহিউদ্দিন মজুমদার বলেন, আমরা সবসময় ক্যাফেটেরিয়া পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করি। কিন্তু শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রোগ্রাম শেষ করে ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার না করে সেভাবেই রেখে চলে যায়। মাঝে মাঝে আমরা বিরক্ত হয়ে ছাদে তালা দিয়ে রাখি কিন্তু শিক্ষার্থীরা সেই তালা পরক্ষণেই ভেঙ্গে ফেলে।

এবিষয়ে সহকারী রেজিস্ট্রার মো. মিজানুর রহমান সময় জার্নালকে বলেন, ‘আমরা আমাদের পক্ষ থেকে বার বার ক্যাফেটেরিয়ার পরিচালককে জানিয়েছি ক্যাফেটেরিয়ার পরিবেশ যেন সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা হয়। তারা নিজেদের দায়িত্বের অবহেলা করে ক্যাফের পরিবেশ নোংরা রাখে। ক্যাফেটেরিয়ার বিভিন্ন খাবারের প্যাকেট ও ময়লা আবর্জনা যেন বাহিরে না ফেলে কিন্তু তারা এ কথা অমান্য করে বাহিরে ফেলছে।’

সময় জার্নাল/আরইউটি/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ