চীন থেকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার ৫০০ কিট পেল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ ৬:১৯ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০

করোনাভাইরাস পরীক্ষায় বাংলাদেশকে ৫০০টি কিট দিয়েছে চীন সরকার। মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেকের কাছে কিট হস্তান্তর করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বন্ধুপ্রতীম দেশ চীনের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমরা কিছু মেডিকেল জিনিসপত্র দিয়েছিলাম। যেটা ব্যবহার করে ডাক্তার ও নার্সরা রোগীর চিকিৎসা দিয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় চীন সরকারও শুভেচ্ছা স্বরূপ বাংলাদেশকে ৫০০টি টেস্টিং কিট আজকে আমাদের দিয়েছে। আমাদেরও নিজস্ব প্রায় ২ হাজারের মতো কিট রয়েছে। চীন আরও ৫০০টি দিচ্ছে। ইনশাআল্লাহ কিটের কোনো অভাব হবে না।’

তিনি বলেন, ‘একটি কিট দিয়ে একজনকেই পরীক্ষা করা যাবে। এখনকার জন্য এই কিটই যথেষ্ঠ, এছাড়া আরও কিট পাইপলাইনে আছে। আমরা এ পর্যন্ত ৭৯ জনের (করোনাভাইরাস আছে কিনা) পরীক্ষা করেছি।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘তারা আমাদের করোভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য ‘ট্রিটমেন্ট প্রটোকল’ দিয়েছেন। তারা তাদের বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকে এটা করেছেন। এটা আমাদের হাসপাতালের চিকিৎসকদের কাছে পৌঁছে দেব। তারা শিখে যাতে এটা গ্রহণ করেন।’

এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকারের একটি ট্রিটমেন্ট প্রটোকল রয়েছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, চীনের সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে কিটগুলো তৈরি। খুব অল্প সময়ের মধ্যে এই কিটগুলো দিয়ে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের শনাক্ত করা সম্ভব।

এ সময় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সাবরিনা ফ্লোরাসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী ২ হাজার ৭০১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৮০ হাজার ১৫০ জন। এদিকে, ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে ইতালিতে এই ভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। সেখানে এখন পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছে ২২৯ জন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ