চুয়াডাঙ্গায় পূর্বশত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩

প্রকাশিতঃ ৪:০২ অপরাহ্ণ, রবি, ২৯ সেপ্টেম্বর ১৯

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চুয়াডাঙ্গার ছোটসলুয়া গ্রামের শামীম নামক এক যুবকের হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। মূমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের নিকট অভিযোগ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে পুলিশ কোন ব্যবস্থা নিতে পারছে না বলে অপারগতা প্রকাশ করেছে।

জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের ছোটসলুয়া গ্রামের পূর্বপাড়ার বুলবুলের ছেলে শামীম হোসেন গত শুক্রবার বেলা ১১ টার দিকে ধনেপাতা বিক্রি করে বাড়ি ফিরছিলেন।

এসময় একই পাড়ার হাফিজুল, বাহাদুর ও শহিদ কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ঘরের মধ্যে আটকিয়ে ফেলে। ঘরের মধ্যে আটকিয়ে বাঁশ ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে শামীমের দু’হাত, ডান পা ভেঙ্গে দেয় বলে হাসপাতালে ভর্তি থাকা শামীমের স্বজনেরা বলেন। শুধু শামীমেরই হাত পা ভাঙ্গে না, এসময় তার মা ও বাবাকেও পিটিয়ে আহত করে।

তবে প্রতিপক্ষ শহিদের পক্ষ থকে জানানো হয়, বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শামীম তার মেয়ের নিকট আসে।

ছেলেকে আটকিয়ে রেখেছে এমন খবর পেয়ে শামীমের পরিবারের লোকজন লাঠি সোটা নিয়ে শাহিদকে মারপিট করে আহত করে। ঘরের মধ্যে আটকানো আহত শামীমকে উদ্ধার করে ওই দিনই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে শামীমের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করে বলা হয়, এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় অভিযোগ করা হলেও পুলিশ অজ্ঞাত কারণে কোন পদক্ষেপ নিতে পারবে না বলে জানিয়েছে।

তাই আজ রোববার আদালতের আশ্রয় নিবেন বলেও জানিয়েছে। তবে প্রতিবেশীরা জানান, শামীমকে শুধু লোহার রড দিয়েই পেটায়নি। গলার ওপর পা তুলে হত্যার চেষ্টাও চালায় তারা। শামীমের অপরাধের চাইতে তার ওপর নির্যাতনের মাত্রা অনেক বেশি হয়েছে।

এ বিষয়ে সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

সময় জার্নাল / ইব্রাহিম চৌধুরী

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ