জবিতে ছাত্রলীগের হামলায় ১০ ছাত্রদলের কর্মী আহত

প্রকাশিতঃ ৮:৩৬ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৩ অক্টোবর ১৯

জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের মিছিলে হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। হামলায় ছাত্রদলের দশজন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ৩ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- রশীদ, জিতু, পলাশ ও রুবেল। এদের মধ্যে রশীদকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের সামনে থেকে ছাত্রদল মিছিল নিয়ে বের হয়। এসময় তারা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির স্লোগান দিতে থাকে। মিছিলটি শান্তচত্বরের সামনে আসলে পেছন থেকে শাখা ছাত্রলীগের কর্মীরা তাদের ধাওয়া দেয়। পরে মূল ফটকের সামনে ছাত্রদলের কয়েকজন কর্মী পড়ে যায়। তখন অর্থনীতি বিভাগের ৩য় ব্যাচের শিক্ষার্থী আব্দুর রশীদকে হাতের নাগালে পেয়ে বেধড়ক মারধর করে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে ছাত্রদলের জবি শাখার সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা এই হামলার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। ছাত্রদল ক্যাম্পাসে নিয়মিত অবস্থান করবে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে জবি প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে একজনকে আহত অবস্থায় প্রক্টর অফিসে আনা হয়। তাকে চিকিৎসার জন্য মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জবি ছাত্রদল সভাপতি রফিকুল ইসলাম তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আমরা এই হামলার সুষ্টু বিচার দাবি করছি এবং দুই দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার নামফলক পুনঃস্থাপন করার দাবি জানাচ্ছি। আজকে থেকে আমরা ক্যাম্পাসে নিয়মিত অবস্থান করবো।

এ বিষয়ে জবি প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আজ সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে একজনকে আহত অবস্থায় প্রক্টর অফিসে আনা হয়। আমরা তাকে চিকিৎসার জন্য মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছি।

বিচার হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা ব্যবস্থা নিবো।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ