জবির পরিবেশ ঠিক রাখতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অভিযান

প্রকাশিতঃ ১২:৩০ অপরাহ্ণ, বুধ, ১৮ সেপ্টেম্বর ১৯

জবি প্রাতানিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) প্রশাসনের আশ্বাসের সঠিক বাস্তবায়ন না হওয়ায় পরিবেশ ঠিক রাখতে দ্বিতীয় বারের মতো শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ দায়িত্বে ক্যাম্পাসের দ্বিতীয় গেট এবং সামনের লেগুনা স্টান্ডের আশেপাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে।

১৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা শ্লোগানে মধ্যদিয়ে উচ্ছেদ ওভিযান শুরু করে।

প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ে “প্রশাসনের কালো হাত, ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও” স্লোগানে ক্যাম্পাসে মিছিল বের করে। ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে তারা রড ও টিন দিয়ে বন্ধ করা দ্বিতীয় গেট ভেঙে ফেলে। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীরা গেটের সামনে লেগুনাস্ট্যান্ড এবং ফুটপাতের অবৈধ সকল দোকান অপসারণ করে।

এর আগে গত রবিবার (১৫ই সেপ্টেম্বর) জবি শিক্ষার্থীরা লেগুনা স্ট্যান্ড উচ্ছেদের দাবিতে মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মিছিল দেয় এবং দ্বিতীয় গেটের লেগুনা স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে দ্বিতীয় গেট উন্মুক্ত করে দেয়।

এ সময়, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে দেখা করে এক সপ্তাহের ভেতর লেগুনা স্ট্যান্ড সম্পূর্ণভাবে তুলে দিয়ে দ্বিতীয় গেট সংস্কার করে পুরোপুরি অবমুক্ত করার দাবি জানান।

 

উচ্ছেদ অভিযানে শিক্ষার্থীদের একাংশ।

আন্দোলনকারী নেতারা জানান, জবি প্রশাসন আমাদেরকে সর্বদা আশ্বাস দিলেও বাস্তবায়নে তারা বরাবরের মতোই এসব বিষয়ে উদাসীন। জগন্নাথের কোনো জায়গা কারো দখলে নিতে দেয়া হবে না, সে যত বড়ই নেতা হোক। এবং আজ থেকে দ্বিতীয় গেট আমরা উন্মুক্ত ঘোষণা করছি। আমরা আমাদের নিজেদের ক্যাম্পাস পরিচ্ছন্ন রাখতে নিজেরাই কাজ করছি।

জানা যায়, এর আগেও প্রশাসনকে দ্বিতীয় গেট উন্মুক্ত ও অবৈধ লেগুনা স্টান্ড উচ্ছেদের দাবি জানানো হলে তারা জানান, ভর্তি পরীক্ষার আগেই সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং লেগুনাস্ট্যান্ড সরিয়ে নেয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, “আমরা এ বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের সাথে কথা বলেছি। শিক্ষার্থীদের নির্বীগ্মে চলাফেরা নিশ্চিত করতে যা যা করা দরকার আমরা তা করবো। আগামী সাত দিনের মধ্যে আমরা সকল অবৈধ স্থাপনা সড়িয়ে দিয়ে দ্বিতীয় গেট উন্মুক্ত করে দিবো।”

এদিকে, উত্তপ্ত অবস্থা বিরাজ করায় জবি ক্যাম্পাসের বাইরে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ