জেল হত্যা দেশের কলঙ্কজনক অধ্যায়: অধ্যক্ষ মোঃ আশরাফ

প্রকাশিতঃ ৬:৩৯ অপরাহ্ণ, রবি, ৩ নভেম্বর ১৯

তিতুমীর কলেজ প্রতিনিধিঃ আজ শোকাবহ জেলহত্যা দিবস। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর দ্বিতীয় কলঙ্কজনক অধ্যায় রচিত হয় এই দিনে। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর মধ্যরাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠে জাতীয় চার নেতা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এ এইচ এম কামারুজ্জামানকে নির্মম ও নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়।

এ হত্যার তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন সরকারি তিতুমীর কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আশরাফ হোসেন।

জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে সময় জার্নালকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, জেলখানা হচ্ছে সবচেয়ে নিরাপদ জায়গা। সেখানে বন্দী অবস্থায় জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যার করে বাংলাদেশের একটি জঘন্যতম অধ্যায় রচিত হয়েছিলো সেদিন। তখন হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছিলো দেশের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ।

স্মৃতিচারণ করে আশরাফ হোসেন বলেন, আমি তখন ক্লাস নাইনের ছাত্র ছিলাম। আমি তখন মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দেখেছি। তারা এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ করেছেন। তবে, রাস্তায় নেমে মানুষ ওই ঘটনার প্রতিবাদ করতে পারেননি। এর বিরুদ্ধে কথা বলবে সেটা তখন সম্ভব ছিলোনা। সামরিক শাসন সে সময় ভয়াবহ রুপ ধারণ করছিলো।

নতুর প্রজন্ম এ বিষয় থেকে কি শিক্ষা লাভ করতে পারে জানতে চাওয়া হলে সময় জার্নালকে তিনি বলেন, তখন তরুণ প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস থেকে দূরে রাখা হতো, তাদেরকরে সঠিক ইতিহাস থেকে বঞ্চিত করা হতো। বরং মিথ্যা ইতিহাস, বানোয়াট ইতিহাস প্রচার করে মানুষদের বিভ্রান্তি করার চেষ্টা চালাতো। বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠন করার পর তরুণরা সঠিক ইতিহাস জানতে পারছে। নবীন প্রজন্মের উচিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেখানো পথ অনুসরণ করে দেশের কল্যাণে কাজ করা।

সময় জার্নাল/ হৃদয় খান

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ