ঢাকা দক্ষিণে ২৮ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

প্রকাশিতঃ ৮:২৫ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২ জানুয়ারি ২০

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আসন্ন নির্বাচনে ২৮ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। ডিএসসিসির রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে দাখিলকৃত মনোনয়নপত্রগুলো বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) গোপীবাগের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে যাচাই-বাছাইয়ে এগুলো বাতিল করা হয়। এর মধ্যে সাধারণ ওয়ার্ডের ২৬ জন এবং সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে ২ জনের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম সচিব ও রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেন এসব তথ্য জানান।

এদিকে ডিএসসিসির মেয়র প্রার্থী হিসেবে যে সাত জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন যাচাই-বাছাইয়ের পর তাদের সকলেরই প্রার্থিতা বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মেয়র প্রার্থীদের নাম ঘোষণার পর সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কাউন্সিলর প্রার্থী ও সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয় করে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব ও রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেন জানান, দক্ষিণ সিটিতে মেয়র পদে ৭ জনই বৈধ। এছাড়া, সংরক্ষিত নারী আসনে ২ জন, এবং সাধারণ ওয়ার্ডের ২৬ জন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য এক হাজার ৩৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। সিটি নির্বাচনের এ তিন পদে দুই সিটিতে মনোনয়নপত্র তুলেছিলেন দুই হাজার ২৬০ জন। এর মধ্যে দুই সিটিতে মেয়র প্রার্থী ছিলেন ১৪ জন।

মেয়র প্রার্থী হিসবে দক্ষিণে জমা দিয়েছিলেন যারা-

দক্ষিণে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন আওয়ামী লীগের শেখ ফজলে নূর তাপস, বিএনপির ইশরাক হোসেন, জাতীয় পার্টির হাজী মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন মিলন, ইসলামী আন্দোলনের মো. আবদুর রহমান, এনপিপির বাহরানে সুলতান বাহার, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আকতার উজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লা ও গণফ্রন্টের আব্দুস সামাদ সুজন।

এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৬০ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সবমিলিয়ে এ সিটিতে মনোনয়ন দাখিল করেছেন ৫৬৯ জন।

এদিকে, ৫ জানুয়ারির মধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের কাছে আপিল করা যাবে। আপিল কর্তৃপক্ষ হিসেবে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারকে নিয়োগ করেছে নির্বাচন কমিশন।

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, প্রার্থিতা প্রত্যাহার হবে ৯ জানুয়ারি, প্রতীক বরাদ্দ ১০ জানুয়ারি। ভোটগ্রহণ ৩০ জানুয়ারি।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ