ঢাবি প্রতিষ্ঠায় খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লার ভূমিকা অনস্বীকার্য : ইবি উপাচার্য

প্রকাশিতঃ ১:১০ অপরাহ্ণ, রবি, ২৯ ডিসেম্বর ১৯

.
মাসুদ পারভেজ : কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর রশিদ আসকারী বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠায় খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা (রঃ) অবদান ও সম্পৃক্ততা ছিল অনস্বীকার্য। বাংলাদেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস অভিন্ন। বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার প্রায় সব আন্দোলনই অঙ্কুরিত হয়েছিল এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাঙ্গণে। বিশ্ববিদ্যালয়টির সুবর্ণজয়ন্তীর শুভক্ষণে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের জন্ম। একটি জনগোষ্ঠীর সবচেয়ে প্রাচীন, ঐতিহ্যবাহী ও জ্ঞান চর্চার প্রধান বাতিঘর হিসেবে এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও ঐতিহাসিক পালাবদলের প্রধানতম কেন্দ্র হিসেবে বিগত একশ বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পথচলায় রয়েছে বৈচিত্রময় আড়ম্বর।

শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠাতা খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লার ১৪৬ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।

নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সভাপতি, সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক এর সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস, এম, মোস্তফা কামাল, নলতা কেন্দ্রীয় আহছানিয়া মিশনের সাবেক সভাপতি আলহাজ মো. সেলিমউল্লাহ।

সেমিনারে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ঠ সাহিত্যিক অধ্যাপক গাজী আজিজুর রহমান। সেমিনারে প্রধান আলোচক ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মজিদ, সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ হাবিবুর রহমান, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক রেজাউল করিম, কোলকাতা আহছানিয়া মিশনের সভাপতি অধাপক গোলাম মহিউদ্দীন। খানবাহদুর আহ্ছানউল্লাহ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক এ.এফ.এম এনামুল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. মজিবর রহমান।

খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা ইনস্টিউিটের পরিচালক মো. মনিরুল ইসলামের সঞ্চালনায় সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন, ঢাকা আহছানিয়া মিশনের পরিচালক ইকবাল মাসুদ, মিশনের সহ সভাপতি মুনসুর আহমদ, কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হক রাসেল, নলতা পাক রওজা শরীফের খাদেম আলহাজ¦ মৌলবী আনছার উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্জ মো. এনামুল হক।

বক্তারা আরো বলেন, অবিভক্ত বাংলার শিক্ষা বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার একেবারে সূচনালগ্ন হতে প্রতিষ্ঠার দিন পর্যন্ত প্রত্যক্ষ, বলিষ্ঠ-সাহসী ভূমিকা পালন করেছিলেন খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা।

অনুষ্ঠানে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ রচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাপর্বে খান বাহাদুর আহ্ছানউল্লাহর ভুমিকা ও আহ্ছানউল্লা ইন্সটিটিউট এর মহা পরিচালক এ এফ এম এনামুল হক রচিত খান বাহাদুর আহ্ছানউল্লা রচনা অভিধান শীর্ষক দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

প্রসঙ্গত, সকাল ১০ টা হতে বেলা ২ টা পর্যান্ত অনুষ্ঠিত সেমিনারে নলতা শরীফ ময়দানে অংশগ্রহন করেন দেশ বিদেশ থেকে আসা আহছান প্রেমিক, সরকারী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও সুধীবৃন্দ। শেষে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন নলতা শাহী জামে মসজিদের পেশ ইমাম হযরত মাওঃ আবু সাঈদ রংপুরী।

সময় জার্নাল/আরইউটি

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ