দৌলতদিয়ায় আরেক যৌনকর্মীর জানাজা সম্পন্ন

প্রকাশিতঃ ১১:১২ পূর্বাহ্ণ, শুক্র, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০

নিউজ ডেস্ক: রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে এবার এসপির কথায় আরেক যৌনকর্মীর জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। তাকে পল্লীর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে যৌনপল্লীর পাশে রিনা বেগম নামের ওই নারীর জানাজা সম্পন্ন হয়।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মিজানুর রহমানের উদ্যোগে গোয়ালন্দ থানা জামে মসজিদের ইমাম আবু বক্কর সিদ্দিক এ জানাজা পড়ান।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে যৌনকর্মী রিনা বেগম মারা যান। খবরটি রাজবাড়ীর পুলিশ সুপারের কানে যায়। তাৎক্ষণিক তিনি ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী ওই নারীর জানাজা নামাজ পড়ানোর উদ্যোগ নেন।

কিন্তু যৌনকর্মী বলে স্থানীয় কোনো ইমাম তার জানাজা পড়াতে রাজি হননি। তাই গোয়ালন্দ ঘাট থানা মসজিদের ইমামকে সঙ্গে নিয়ে তার জানাজা নামাজ পড়ানোর ব্যবস্থা করেন পুলিশ সুপার।

প্রচলিত রেওয়াজ ভেঙে চলতি মাসের ২ ফেব্রুয়ারি হামিদা বেগম নামে এক যৌনকর্মীর জানাজা পড়ানোর মাধ্যমে নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান।

তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার রাতে দ্বিতীয়বারের মতো আরেকজনের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল জব্বার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল মামুন, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আশিকুর রহমান ও দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডলসহ স্থানীয় এলাকাবাসী।

পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, একজন মানুষের শেষযাত্রায় সামাজিক কারণে যদি জানাজা না দেই, তাহলে মানুষ হিসেবে মানুষের প্রতি অবিচার করা হবে। সেই আলোকে প্রথম যৌনকর্মীর জানাজা শেষে আজ দ্বিতীয় যৌনকর্মীর জানাজার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ