দ্বিগুণ ভাড়া বৃদ্ধি, মরার উপর খরার ঘা

প্রকাশিতঃ ৮:০৩ অপরাহ্ণ, শনি, ৩০ মে ২০

মোঃ আশ্রাফুল আলম ভূঁইয়া :

সাধারণ মানুষের দুর্দিনের সুযোগে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জনগণের জন্য মরার উপর খড়ার ঘা এর মত হবে।

আমাদের দেশে পরিবহন সেক্টরে সবচেয়ে বেশী বিশৃঙ্খলা, পরিবহণ সেক্টরে জড়িতরা অতীতেও কখনো নিয়ম কানুনের তোয়াক্কা করেনি আর সামনে করবে বলেও মনে করেনা অধিকাংশ মানুষ। এরা সবকিছু ম্যানেজ করে চলে, কিভাবে ম্যানেজ করে এটা কমবেশ সবাইই জানে।

তাই, অর্ধেক যাত্রী বহনের নামে ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গলাকাটা সিদ্ধান্ত।

কারণ, অর্ধেক যাত্রী নেয়ার ব্যাপারটা শুধু বই-পুস্তক আর টেলিভিশন টকশোতে সীমাবদ্ধ থাকবে। বাস্তবে এরা পুরোসীটতো ফিলআপ করবেই; দাঁড়িয়েও প্যাসেঞ্জার নিবে- আমি নিশ্চিত। কারণ এটাই আমাদের চিরাচরিত স্বভাব।

তাছাড়া, সবচেয়ে বড় সমস্যা হল আমাদের দেশ এমনি একটি দেশ এদেশে একবার কোন কিছু বৃদ্ধি পেলে তা আর কোনদিনও কমে না। এই যেমন বিশ্ববাজারে জ্বালানির দাম কমলেও; বাংলাদেশে কমেনি।

সারাদেশে পরিবহন সংকট,মানুষের ভোগান্তি, অভাব অনটন তার উপর এমন সিদ্ধান্ত মরার উপর খরার ঘা এর মত। প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ ঘর থেকে বের হবে, যানবাহনে উঠবে।

কিন্তু এখন উচ্চবিত্ত ছাড়া কারোর পকেটেই টাকা নাই। চরম অর্থকষ্টে নিম্ন-মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষ এখন দিশেহারা। এই সাধারণ মানুষগুলোর পক্ষে সম্ভব না যে ২০ টাকার ভাড়া ১০০ টাকা দেয়া। যেখানে মানুষের ঘরে খাবার নেই, ঔষধ কেনার টাকা নেই, সেখানে গাড়ীভাড়া বাড়ানোর এই অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত মানুষ কিভাবে নিবে??

এ ব্যাপারে সরকারের কড়া হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। পরিবহণ মালিক ও নেতাদের এহেন অসৎ স্বার্থ চরিতার্থ করার সুযোগ সাধারণ মানুষ মেনে নিবেনা।

তাই, সাধারণ কর্মজীবী মানুষ ও ছাত্র সমাজের কথা চিন্তা করে গাড়ী ভাড়া বাড়ালেও আরো সহনীয় পর্যায়ে অর্থাৎ সাধারণ মানুষের সাধ্যের মধ্যে করতে হবে।

কারণ, সাধারণ ছুটির মধ্যেই যেসব বেসরকারি প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল সেখানে কর্মরতরা দ্বিগুণ ভাড়া দিয়েই গন্তব্যে গিয়েছে। এখন সরকার সাধারণ ছুটি বাড়াচ্ছেনা, জীবনযাত্রা স্বাভাবিক করতে চাইছে; এখনও যদি ভাড়া দ্বিগুণের মতই হয়- তবে সরকারী সিদ্ধান্তের সুফল কি!!?

মোঃ আশ্রাফুল আলম ভূঁইয়া
সদস্য, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটি
‘একসেস টু হিউম্যান রাইটস ইন্টারন্যাশনাল’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।