নাটোরে দুদক কর্মকর্তা পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ৩

প্রকাশিতঃ ৬:৫৭ অপরাহ্ণ, বুধ, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০

ইসাহাক আলী, নাটোর : জেলার গুরুদাসপুরে দুদকের পরিচয় ব্যবহার করে চাঁদাবাজীর অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাহারুল ইসলাম জানান, এক পল্লী চিকিৎসকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে হাফিজুলকে আটক করা হয়। পরে তার মাধ্যমে আবু সাঈদ ও হৃদয় নামে নামে অপরদের ওয়াকিটকিসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

জানা যায়, নাটোরের গুরুদাসপুরের তালবাড়িয়া পূর্বপাড়ার যুবক আবু সাঈদ সম্প্রতি দুরন্ত সত্যের সন্ধানে (দুসস) নামে একটি ভূঁইফোড় সংবাদ এজেন্সীর জেলা প্রতিনিধির দায়িত্ব নেন।এরপর তার মাধ্যমে ক্রাইম রিপোর্টার হিসাবে নিয়োগ পান একই উপজেলার হাঁসমারি গ্রামের হাফিজুল ইসলাম নামে আরেক যুবক। পরে দুজন মিলে গড়ে তোলে ৬জনের সংঘবদ্ধ একটি চাঁদাবাজ চক্র। চক্রটি একযোগে বিভিন্ন ঔষুধের ফার্মেসী, পল্লী চিকিৎসক ও বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের দোকানে হানা দিয়ে দুদকের সহযোগি প্রতিষ্ঠান দুসসের পরিচয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করে।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি গুরুদাসপুরের নয়াবাজার বিশ্বরোড মোড়ে আল আমিন নামে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে যায় চক্রটি। তারপর চক্রের মূল হোতা আবু সাঈদ ও হাফিজুল ইসলাম দুদকের ভ্রাম্যমাণ অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির কাগজপত্র দেখতে চান। কাগজপত্র দেখে তারা বলে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আছে। এক পর্যায়ে ঐ পল্লী চিকিৎসককে জেলে দেবার ভয় দেখান। পরে একহাজার টাকা নিয়ে কাউকে কিছু না বলতে শাসিয়ে চলে যায় তারা । পরে আল আমিন থানায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে।

নাজিরপুর বাজারের একাধিক ব্যক্তি জানান, দুদক বলে পরিচয় দিয়ে এই প্রতারকরা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ