নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছে মানুষ

প্রকাশিতঃ ৬:৩৪ অপরাহ্ণ, বুধ, ৭ আগস্ট ১৯

নিউজ ডেস্ক: শুরু হয়েছে ঘরে ফেরার উৎসব। প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে রাজধানী ছেড়ে শিকড়ে ফিরতে শুরু করেছে মানুষ। ট্রেন ও বাসে ঘরমুখী মানুষের যাত্রা শুরু হয়েছে আজ বুধবার থেকে। প্রথম দিনেই ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঘরমুখী যাত্রীদের ভিড় দেখা গেছে। ট্রেনগুলোর সময়সূচি মোটামুটি ঠিক থাকায় যাত্রীদের তেমন ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে না।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বিক্রি করা অগ্রিম টিকিটের যাত্রা শুরুর প্রথম দিনে বুধবার আন্তনগর ট্রেনগুলোতে ভিড় থাকলেও তা উপচে পড়া ছিল না।

গত ২৯ জুলাই যারা ট্রেন ও বাসের আগাম টিকিট ক্রয় করেছেন, তারাই বুধবার প্রথম বাড়ি ফেরা শুরু করেছেন। মূলত বুধবার থেকে রেল-বাসের ঈদসেবা শুরু হলো। অবশ্য সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে মঙ্গলবার দিনগত রাত থেকেই বিভিন্ন গন্তব্যের লঞ্চ ছেড়ে গেছে। বুধবার ভোরেও অনেক লঞ্চ ঘাট ছেড়ে গেছে।

বুধবার সরকারি-বেসরকারি দপ্তর খোলা থাকায় যাত্রীদের ভিড় কম। বৃহস্পতিবারও অফিস-আদালত খোলা, তবে বিকেল থেকে যাত্রীদের ভিড় বাড়তে পারে।

বুধবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ঈদযাত্রার ১০টি ট্রেন স্টেশন ছেড়ে গেছে। এর মধ্যে ৪০ মিনিট দেরিতে চিলাহাটিহামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ও এক ঘণ্টা দেরিতে রংপুর এক্সপ্রেস ছেড়ে গেছে।

কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মোহাম্মদ আমিনুল হক বলেন, ঈদযাত্রার প্রথম দিনে স্টেশনে অত বেশি ভিড় নেই। এর কারণ যাত্রীরা স্টেশনে এসেই ট্রেন পাচ্ছেন। লোকজন চলে যাচ্ছেন। এভাবে চললে যাত্রীদের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন হবে এবং তারা নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন।

রাজধানীর শ্যামলী, কল্যাণপুর ও গাবতলীর বিভিন্ন বাস কাউন্টারে গিয়ে দেখা যায়, পরিবার-পরিজন নিয়ে বাসের অপেক্ষা করছেন অনেকে। কেউ কেউ করছেন টিকিটের খোঁজ। উত্তরবঙ্গে বাস চলাচলে এবার তেমন ঝক্কি নেই। সময়মতো বাস আসছে। দক্ষিণবঙ্গের বাসগুলোকে ফেরিঘাটে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ