১ হাজার ৯৫০ দৃশ্যমান
পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান বসলো

প্রকাশিতঃ ৪:২৯ অপরাহ্ণ, শনি, ২৫ মে ১৯

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি : পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে বসলো সেতুর আরেকটি স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার)। আর এতে করে সেতুর ১ হাজার ৯৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো।

শনিবার (২৫ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ১৪ ও ১৫ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যান ৩বি বসানো হয়। পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ স্প্যানটি সেতুর ত্রয়োদশ স্প্যান। এটিসহ স্থায়ীভাবে বসানো হয়েছে ১১টি স্প্যান ও অস্থায়ীভাবে বসানো হয়েছে দুটি স্প্যান। সে হিসেবে ৩বি স্প্যানটি স্থায়ীভাবে বসানো একাদশতম স্প্যান হবে।

জাজিরাপ্রান্তে ৯টি স্প্যানের মোট ১৩৫০ মিটার ও মাওয়া প্রান্তের দুইটি স্থায়ী ও একটি অস্থায়ী স্প্যান মিলে মোট ৪৫০ মিটার এবং সেতুর মাঝ বরাবর একটি স্প্যান অস্থায়ীভাবে বসানোয় ১৫০ মিটার যোগ করে এই ১ হাজার ৯৫০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে। তবে স্প্যানগুলো ভিন্ন ভিন্ন মডিউলে বসানোর কারণে দৃশ্যমান অংশগুলো এক সারিতে নয়, বরং বিচ্ছিন্নভাবে থাকবে।

এর আগে পিলারে বসানোর জন্য শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যান ৩বি পিলারের কছে আনা হয়। তবে সময় স্বল্পতার কারণে এবং কারিগরি জটিলতার কারণে শুক্রবার স্প্যান ৩বি বসানো যায়নি।

এর আগে কয়েক দফায় এই স্প্যানটি বসানোর তারিখ পরিবর্তন করা হয়। এর আগে পদ্মা নদীতে নাব্য সংকট এবং ১৪ নম্বর পিলারে লিফটিং হ্যাঙ্গার না বসাতে পারার কারণে স্প্যান ৩-বি পিলারের ওপর বসানোর শিডিউল পেছায় পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষ।

প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, পদ্মা সেতুতে দুই ধরনের স্প্যান বসবে। নদীর মধ্যে থাকা ৪২টি পিলারের উপর ৪১ টি স্প্যান (সুপার স্ট্রাকচার) যেগুলো মূলত স্টিলের। আর নদীর দুই পাড়ে থাকা ভায়াডাক্টের ওপর ৭টি করে ১৪টি রেলওয়ে স্প্যান।

জাজিরা প্রান্তে ২৩৪টি সুপার-টি গার্ডার ও মাওয়া প্রান্তে ২০৪টি সুপার-টি গার্ডার মিলিয়ে মোট ৪৩৮টি সুপার টি-গার্ডার বসবে।

এতে মোট রোডওয়ে স্প্যান হবে ৮৩টি। স্টিলের স্প্যান বা সুপার স্ট্রাকচার বসানো হয়েছে মোট ১২টি। আজ বসবে ত্রয়োদশ স্প্যান। অন্যদিকে রেলওয়ে গার্ডারের স্প্যান বসেছে একটি। তবে রোডওয়ে সুপার-টি গার্ডারের কোনও স্প্যান এখনও বসানো হয়নি।

সজা/এমএম

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ