স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রণোদনা ঘোষণা :
প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ

প্রকাশিতঃ ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ৯ এপ্রিল ২০

করোনার চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য প্রণোদনার ঘোষণা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও খ্যাতিমান মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ।

গত মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) সকালে নিজের সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের জেলাগুলোর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে প্রণোদনা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ঘোষণায় বলা হয়েছে, চিকিৎসক-নার্সসহ কোনো স্বাস্থ্যকর্মী দায়িত্বকালীন সময়ে করোনায় আক্রান্ত হলে তাদের জন্য ৫ থেকে ১০ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্যবীমা চালু করা হবে।

উল্লেখ্য, এরআগে, সময় জার্নালকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে করোনার চিকিৎসায় নিয়োজিত ডাক্তার-নার্স সহ স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য প্রণোদনা দেয়া উচিত বলে সরকারের কাছে দাবি জানান অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ।

প্রণোদনা দেয়ার পর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সময় জার্নালকে অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ বলেন, ‘চিকিৎসকদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকসহ সকল স্বাস্থ্যকর্মী ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। এ অবস্থায় তাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে একটি প্রণোদনার ব্যবস্থা করার অনুরোধ করি। স্বাস্থ্যকর্মীদের কথা বিবেচনা করে তিনি এ আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন। এতে স্বাস্থ্যকর্মীরা সেবা দিতে উৎসাহিত হবেন।’

প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক আরও বলেন, ‘এছাড়াও পরিস্থিতি খারাপ হলে পশ্চিমবঙ্গের মতো বাংলাদেশেও স্বাস্থ্য বীমার ব্যবস্থা করার পরমর্শ দিই। তাতেও তিনি সাড়া দিয়েছেন ‘’
তিনি চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দাবি অনুযায়ী, মানবিক দিক বিবেচনায় নিয়ে স্বাস্থ্য সেবা চালিয়ে যেতে চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এক্ষেত্রে সকল স্বাস্থ্যকর্মী ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) পরিধানের বিষয়টি যথাযথভাবে মেনে চলবেন বলে আশা প্রকাশ করেন অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ।’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ