প্রবাসী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের শিক্ষাবৃত্তি দেবে সরকার

প্রকাশিতঃ ৩:০১ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২১ জানুয়ারি ২০

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত প্রবাসী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের জন্য প্রবাসী কল্যাণ শিক্ষাবৃত্তি দিতে যাচ্ছে সরকার।

প্রবাসী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের মধ্যে যারা বর্তমানে পিইসি পাস করে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছেন, যারা জেএসসি বা জেডিসি পাস করে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হয়েছেন এবং ২০১৯ সালের এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একাদশ বা সমমান অথবা ডিপ্লোমা (১ম সেমিস্টার/বর্ষ) শ্রেণিতে অধ্যয়নরত তাদের শিক্ষা বৃত্তি দেবে সরকার।

প্রবাসী কল‌্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড এই শিক্ষাবৃত্তি পরিচালনা করবে।

বোর্ডের পরিচালক (আইআরপি) নুরুন আখতার জানান, চলতি বছরের ১৫ মার্চ, ২০২০ পর্যন্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ এই শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন করা যাবে।

আবেদনপত্র ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের। ওয়েবসাইট থেকে বিনামূল্যে সংগ্রহ করা যাবে।

আবেদনকারীকে ২০১৯ সালে পিইসি বা সমমান, জেএসসি বা সমমান এবং এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় চার দশমিক ৮০ গ্রেড প্রাপ্ত হয়ে দেশের যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণি বা নবম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত কিংবা এসএসসি বা এ-লেভেল পরীক্ষা পাশ করে দেশের কোনো সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বা মেডিক্যাল কলেজে অধ্যায়নরত থাকতে হবে।

তবে প্রবাসী বৈধভাবে কর্মরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী কর্মীর সন্তানরা জিপিএ-৪ প্রাপ্ত হলেও আবেদন করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে প্রবাসী মৃত্যুবরণকারী কর্মী পরিবার, যারা ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে আর্থিক অনুদান পেয়েছেন বা বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক প্রদত্ত মৃত্যুর এনওসিতে বৈধ বলে উল্লেখ রয়েছে তাদের সন্তানরাও বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

বিএমইটির বহির্গমন ছাড়পত্র নিয়ে বিদেশ গেছেন অথবা বিদেশে কর্মরত যেকোনো কর্মী বাংলাদেশ দূতাবাস বা হাইকমিশনের মাধ্যমে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের সদস্য পদ গ্রহণ করেছেন সে সকল কর্মীর সন্তানরাও শিক্ষা বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন।

আর্থিকভাবে অসচ্ছল প্রবাসী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের বৃত্তি প্রদানের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। একজন প্রবাসী কর্মীর সর্বোচ্চ দুই সন্তানকে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হবে।

ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, আবেদনপত্রের সাথে কিছু কাগজপত্র দাখিল করতে হবে। এর মধ্যে রয়েছে, পিতা বা মাতা প্রবাসী কর্মী হওয়ার স্বপক্ষে আনুষঙ্গিক কাগজপত্র। প্রবাসী মৃত্যুবরণকারী কর্মীর মৃত্যু সনদ। শিক্ষার্থীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং পরীক্ষার মূল নম্বরপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি।

আবেদনপত্রে শিক্ষার্থীর মায়ের অনুপস্থিতিতে বাবার ব্যবহৃত সঠিক মোবাইল নাম্বার অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ