দিনাজপুরে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন
প্রায় ৭ লাখ শিশুকে নিয়ে টিকাদান কর্মসূচি

প্রকাশিতঃ ৫:০৮ অপরাহ্ণ, সোম, ১৬ মার্চ ২০

দিনাজপুর সংবাদাতা: দিনাজপুরে হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন-২০২০ উপলক্ষে ৯ মাস থেকে ১০ বছর বয়সী ৬ লাখ ৯২ হাজার ৯৩৬ শিশুকে হাম-রুবেলার টিকা দেয়া হবে। আগামী ১৮ মার্চ হতে ১১ এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত ৩ সপ্তাহব্যাপী এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার (১৬ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টায় সিভিল সার্জন অফিসের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মোঃ আব্দুল কুদ্দুস সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

সিভিল সার্জন ডা. মোঃ আব্দুল কুদ্দুস আরো জানান, দিনাজপুর জেলা ১৩ উপজেলায় নিয়মিত ও অনিয়মিত মিলে মোট ৬ হাজার ৮৫১টি কেন্দ্র রয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে দুইজন করে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মী এবং স্বেচ্ছাসেবক মিলে মোট ১৩ হাজার ৭০২ জন স্বেচ্চাসেবককর্মী দায়িত্ব পালন করবে।

প্রতিদিন সকাল ৮টা হতে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে এসব টিকাদান কেন্দ্রে স্বেচ্ছাসেবকরা শিশুদেরকে হাম-রুবেলার টিকা প্রদান করবেন।

সিভিল সার্জন জানান, নিয়মিত টিকাদানের পাশাপাশি হাম দূরীকরণ ও রুবেলা নিয়ন্ত্রনের লক্ষ্যকে সামনে রেখে ৯ মাস থেকে ১০ বছর বয়সী সকল শিশুকে ১ ডোজ এমআর টিকা দেয়া হবে। পূর্বে হাম বা এমআর টিকা পেয়ে থাকলেও অথবা হাম বা রুবেলা রোগে আক্রান্ত হলেও ওই বয়সের সকল শিশুকে এমআর (হাম-রুবেলা) টিকা দেয়া হবে।

তিনি বলেন, হাম ও রুবেলা ভাইরাসজনিত দু’টি রোগ। এ রোগ দু’টি সাধারণত একজন আক্রান্ত রোগীর হাঁচি কাশির মাধ্যমে তার সংস্পর্শে আসা অন্যদের মধ্যে দ্রুত ছড়ায়।

শিশু ছাড়াও যে কোন বয়সের মানুষের হাম রুবেলা হতে পারে। তবে শিশুদের মধ্যেই হাম রুবেলার প্রকোপ, জটিলতা এবং মৃত্যু ঝুঁকি বেশী দেখা যায়। হামের জটিলতাগুলোর মধ্যে নিউমোনিয়া, অপুষ্টি, অন্ধত্ব ও বধিরতা অন্যতম।

সিভিল সার্জন বলেন, গর্ভবর্তী মায়েরা গর্ভের ৩ মায়ের মধ্যে হাম-রুবেলায় আক্রান্ত হয়ে থাকে। গর্ভবর্তী মা হাম-রুবেলায় আক্রান্ত হলে ৯০ ভাগ শিশু জন্মগত ত্রুটি নিয়ে জন্মগ্রহন করবে। এতে করে অনেক শিশু প্রতিবন্ধী, বধির ও বোবা হয়ে জন্মগ্রহন করবে।তাই হাম-রুবেলা রোগ এবং এর জটিলতার হাত থেকে বাঁচার সর্বোকৃষ্ট উপায় হচ্ছে সঠিক সময়ে শিশুকে হাম-রুবেলার টিকা দিয়ে সুরক্ষিত করা।

ইংরেজিতে হাম-রুবেলাকে মিজেলস এবং রুবেলা সংক্ষেপে এমআর বলা হয়। হাম রুবেলার ব্যাপারে কোন সমস্যা দেখা দিলে ০১৭১১৩১৯৭৮১ নম্বরে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানান সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস।

হাম রুবেলা ক্যাম্পেইন এবং টিকা দানের উপর সাংবাদিকরা যথেষ্ট ভূমিকা রাখতে পারে। বিশেষ করে প্রতিবেদন, ফিচার, ফটো ফিচার, সাক্ষাৎকার, সম্পাদকীয়, উপ-সম্পাদকীয়, তথ্যচিত্র, কার্টুন প্রচার ও প্রকাশের মাধ্যমে ক্যাম্পেইন সম্পর্কে জনগণের অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন।

অনুষ্ঠানে দিনাজপুরে কর্মরত বিভিন্নি প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম, জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো. নুরুল ইসলাম, ইপিআই সুপারইনটেনডেন্ট মোঃ ইছামুদ্দিনসহ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

মাহবুবুল হক খান
সময় জার্নাল/ দিনাজপুর প্রতিনিধি

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ