ফাঁপোরে বহাল চেয়ারম্যান মহররম

প্রকাশিতঃ ৭:৫৭ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১৭ অক্টোবর ১৯

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার সদর উপজেলার এক নং ফাঁপোর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রভাষক মহররম আলীর বিপক্ষে নির্বাচনী ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে সাবেক চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা প্রভাষক আব্দুর রাজ্জাকের দায়ের করা মামলার অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় আদালত আজ বৃহস্পতিবার মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন। ২০১৬ সালের ৪ জুন ১ নং ফাঁপোর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মহররম আলী তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর রাজ্জাকের চেয়ে ১৯৩৯ ভোটের ব্যবধানে মোটরসাইকেল প্রতীকে বিজয় লাভ করে।

উক্ত নির্বাচনের পরেই আব্দুর রাজ্জাক মহররম আলী এবং নির্বাচনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাকে বিবাদী করে মাননীয় প্রথম সিনিয়র সহকারী জর্জ আদালত বগুড়ায় ভোট পূর্ণ গণনা চেয়ে মামলা করেন। বিজ্ঞ আদালত উভয় পক্ষের সাক্ষীদের জেরা জবানবন্দি যুক্তিতর্কের পর ভোট গণনার সিদ্ধান্ত নেন। মাননীয় আদালতে বিজ্ঞ বিচারক অদ্য বাদীর আবেদন না মঞ্জুর করে প্রভাষক মহররম আলীর নির্বাচনের রায় কে বহাল রেখেছেন।

রায় শেষে মহররম আলী এ রায়কে সত্যের বিজয় হয়েছে ও বেশকিছু অনিয়মের কথা উল্লেখ করে বলেন, “ভোট গণনার সময় দেখা যায় প্রদত্ত ভোটের সকল বস্তা সিলগালা খুলে ফেলা হয়েছে। প্রদত্ত ভোটের চেয়ে ২৯৭ টি ভোট গণনার সময় পাওয়া যায় নাই। এক কেন্দ্রে ধানের শীষ মার্কা ১৯টি ভোট থাকলেও সেখানে ধানের শীষের কোন ব্যালট খুঁজেই পাওয়া যায় নাই। আমার মোটরসাইকেল মার্কায় অনেক বৈধ ভোট কে ডাবল সিল মেরে নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। সেইসাথে নৌকা মার্কার অনেক অবৈধ ভোট আমার মোটরসাইকেলের মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে যাহার পেছনে পোলিং অফিসার অথবা প্রিজাইডিং অফিসারের গণস্বাক্ষরের মিল খুঁজে পাওয়া যায় নাই। ইহা ছাড়াও আরো নানাবিধ অনিয়ম পরিলক্ষিত হয়েছে। “

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ