ফারুক ও পরিবারের লেনদেন স্থগিত

প্রকাশিতঃ ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, সোম, ২১ অক্টোবর ১৯

নিউজ ডেস্ক: যুবলীগের চেয়ারম্যানের পদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া ওমর ফারুক চৌধুরীর ব্যাংক হিসাবের লেনদেন স্থগিত করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

একই সঙ্গে তার স্ত্রী, তিন ছেলে ও দুই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাবের লেনদেন স্থগিত করা হয়েছে। ফলে তারা কোনো টাকা উত্তোলন বা স্থানান্তর করতে পারবেন না।

আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর ১১৬ ধারার ক্ষমতাবলে সম্প্রতি এনবিআর এ আদেশ দিয়েছে।

অবৈধ ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান শুরুর পর আলোচনায় থাকা যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে রোববার (২০ অক্টোবর) সংগঠনের সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

গণভবনে যুবলীগের নেতাদের সঙ্গে সংগঠনটির সাংগঠনিক নেত্রী, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। পরে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে একথা জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

দুর্নীতি, অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা ও টেন্ডারবাজির অভিযোগে সম্প্রতি যুবলীগের বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেফতার হওয়ার পর নানা বক্তব্য দিয়ে আলোচনায় আসেন ওমর ফারুক চৌধুরী। পরে গ্রেফতার কারও কারও জিজ্ঞাসাবাদে ওমর ফারুকের নাম আসে বলেও সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়। এরপর ওমর ফারুকের ব্যাংক হিসাব তলব করার পাশাপাশি বিদেশ গমনেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

এমন পরিস্থিতিতে ওমর ফারুক আড়ালে চলে যান। গত ৩ অক্টোবর তাকে গণভবনে দলীয় এক অনুষ্ঠানে দেখা গেলেও এরপর আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। গত ১১ অক্টোবর তাকে ছাড়াই হয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সভা।

২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেস বা সম্মেলনকে সামনে রেখে সংগঠনের নেতাদের প্রধানমন্ত্রী রোববার গণভবনে ডাকলেও ডাকা হয়নি তাকে। আর এই বৈঠকেই ওমর ফারুক চৌধুরীকে যুবলীগ থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ