বাংলাদেশ এখন করোনা মুক্ত, তৃতীয় ব্যক্তিও সুস্থ : আইইডিসিআর

প্রকাশিতঃ ৪:০৩ অপরাহ্ণ, শনি, ১৪ মার্চ ২০

জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট (আইইডিসিআর) এর মুখপাত্র মীরজাদী সেরিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, বাংলাদেশকে করোনা মুক্ত। এর কারণ হিসেবে তিনি জানান, করোনা আক্রান্ত তিন রোগীর সবাই এখন সুস্থ। তাই বাংলাদেশে এখন আর করোনা নেই।

শনিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে আইইডিসিআরের  নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দু’জন আগেই সেরে উঠেছেন। সর্বশেষ বাকি একজনের নমুনা পরীক্ষা করেও করোনা নেগেটিভ এসেছে। আরেকবার পরীক্ষার পর নেগেটিভ এলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।

সেব্রিনা জানান, করোনা আক্রান্ত তিন জনের এক জন ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন। দুই দুইবার পরীক্ষার পর নেগেটিভ আসায় অন্য একজন ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিলেও শেষমেশ পারিবারিক কারণে তিনি বাড়িতে যেতে না চাওয়ায় এখনও হাসপাতালেই আছেন। বাকি একজনের পরীক্ষার টেস্টেও ফলাফলে করোনা নেগেটিভ এসেছে। দ্বিতীয় বার টেস্টি যদি নেগেটিভ আসে, তাহলে তিনি ছাড়পত্র নিয়ে বাড়িতে চলে যেতে পারবেন।

সেব্রিনা আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আশঙ্কায় ২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। যদিও কেউ শনাক্ত হয়নি‌। এছাড়া এখন পর্যন্ত ৯ জন হাসপাতালে আইসোলেশনে আছেন। এছাড়া ৪ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা আছে।

শনিবার ইতালি থেকে দেশে ফেরা বাংলাদেশিদের প্রসঙ্গে আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, ইতালির বিভিন্ন জায়গা থেকে দেশে ফেরা ১৪২ জন বর্তমানে হাজী ক্যাম্পে অবস্থান করছেন। তাদের প্রাথমিকভাবে পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের সঙ্গে কথাবার্তা বলে বিস্তারির জেনে ও দরকারি পরীক্ষানিরীক্ষার পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে করোনা প্রতিরোধের অংশ হিসেবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠা বন্ধ প্রসঙ্গে সেব্রিনা বলেন, স্কুল-কলেজ বন্ধ করার মতো কোনো পরিস্থিতি এখনও সৃষ্টি হয়নি।

 

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ