বিএসটিআইয়ের ১০ মামলা-জরিমানা

প্রকাশিতঃ ৬:১৮ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২২ অক্টোবর ১৯

নিউজ ডেস্ক: ওজন ও পরিমাপে কারচুপির অপরাধে ৯টি পেট্রোল পাম্পসহ ১০ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা ও জরিমানা আদায় করেছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই)।

গতকাল মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ওজন ও পরিমাপে কারচুপির অপরাধে তেজগাঁও, আমিন বাজার ও গাবতলী এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করে বিএসটিআই।

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) সূত্রে জানা যায়, ওজন ও পরিমাপে কারচুপির অপরাধে তেজগাঁও, আমিন বাজার ও গাবতলী এলাকায় ৩টি প্রেট্রোল পাম্পের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও ৬০,০০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

অভিযুক্ত ৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে তেজগাঁও এলাকার মেসার্স সততা এন্ড কোং ১টি অকটেন ও ২টি ডিজেল ডিসপেন্সিং ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ৬০, ৭০ ও ৬০ মিলি লিটার কম দেওয়া এবং আমিন বাজার এলাকার মেসার্স চিস্তিয়া ফিলিং স্টেশন এর ৩টি ডিজেল ও ১টি অকটেন আন্ডার গ্রাউন্ড স্টোরেজ ট্যাংক এর হালনাগাদ ক্যালিব্রেশন চার্ট না থাকায় ও গাবতলী এলাকার মেসার্স নূর ডিজেল পাম্প ফিলিং স্টেশন এর নন স্ট্যান্ডার্ড/নন ম্যাট্রিক ক্যালিব্রেশন চার্টের ব্যবহারে প্রতিষ্ঠান ৩টির প্রত্যেককে ২০০০০ টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়।

এছাড়াও গত ২০ অক্টোবর মিরপুর এলাকার মেসার্স পূর্বাচল গ্যাস ফিলিং অকটেন ডিসপেন্সিং ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে গ্রহণযোগ্য মাত্রার অতিরিক্ত ৪৪০ মিলি লিটার বেশি প্রদান, মেসার্স রহমান সার্ভিস স্টেশন দুইটি অকটেন ডিসপেন্সিং ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ৯০ মিলি লিটার ও ১১০ মিলি লিটার কম প্রদান এবং মেসার্স আল মোসাফির ভেরিফিকেশন সনদ গ্রহণ ব্যতীত ডিজিটাল স্কেল ব্যবহার করায় প্রতিষ্ঠান তিনটির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

এবং গত ২১ অক্টোবর উত্তরা ও গাজীপুর এলাকায় বিএসটিআই অভিযান পরিচালনা করে ৪টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

অভিযুক্ত ০৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে উত্তরা আব্দুল্লাপুর এলাকার মেসার্স তাসিন সিএনজি ফিলিং স্টেশন ১টি অকটেন ডিসপেন্সিং ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ৫০ মিলি লিটার কম দেওয়া এবং গাজীপুর এলাকার মেসার্স স্টার ফিলিং স্টেশন পেট্রোল, অকটেন ও ডিজেল ডিসপেন্সিং ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ৪০ মিলি লিটার, ৫০ মিলি লিটার ও ৫০ মিলি লিটার কম দেওয়া, একটি পেট্রোল, অকটেন ও ডিজেল ডিসপেন্সিং ইউনিট সীল বিহীন অবস্থায় ব্যবহার ও ৪টি ডিজেল ডিসপেন্সিং ইউনিট সীল ভাঙ্গা অবস্থায় পাওয়া যায়।

একই এলাকার মেসার্স রাজ ফিলিং স্টেশন ডিজেল ইউনিটে প্রতি ১০ লিটারে ১৩০ মিলি লিটার বেশি দেওয়া এবং মেসার্স আহম্মেদ ফিলিং এন্ড সিএনজি রিফুয়েলিং স্টেশন এর হাইটেক ব্রান্ডের ৪টি ডিজেল ডিসপেন্সিং ইউনিট সীল বিহীন অবস্থায় ব্যবহার, দুটি স্টোরেজ ট্যাংক এর মেয়াদ উত্তীর্ণ চার্ট ব্যবহার করায় প্রতিষ্ঠান চারটির বিরুদ্ধে ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড আইন-২০১৮ অনুযায়ী মামলা দায়ের করা হয়।

অভিযানে বিএসটিআই’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বেগম রাশিদা আক্তার ভ্রাম্যমান আদালতের নেতৃত্ব দেন এবং সার্ভিল্যান্স টিমে সহকারী পরিচালক মোঃ রেজাউল করিম এর নেতৃত্বে পরিদর্শক মোঃ লিয়াকত হোসেন ও মোঃ বিল্লাল হোসেন অংশগ্রহণ করেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ