বিদ্যুৎ বিল না বাড়িয়ে এসি ব্যবহার করবেন যেভাবে

প্রকাশিতঃ ৬:৩১ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১০ অক্টোবর ১৯

সময় জার্নাল ডেস্ক: অসহনীয় তাপমাত্রা থেকে বাঁচার জন্য এসি-ই একমাত্র ভরসা। কিন্তু মাস শেষে বিদ্যুতের বিল দেখে অনেকের চোখ কপালে উঠে। তাই বিদ্যুৎ বিল বেশি হওয়ার ভয়ে এসি চালু করতে চান না। তাদের জন্য জানিয়ে দিচ্ছি বিদ্যুৎ বিল কম রেখেই এসি ব্যবহারের গুরুত্বপূর্ণ কিছু টিপস!

নিয়ন্ত্রণে রাখুন তাপমাত্রা: এসির তাপমাত্রা ৭৮ ডিগ্রী ফারেনহাইট বা ২৬ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নিচে রাখবেন না। এটা আমাদের দেশের বিদ্যুৎ বিভাগের বেঁধে দেওয়া তাপমাত্রা। খুব বেশি কমাতে গেলে বিদ্যুৎ বেশি খরচ হবে, এমনকি এর কারণে লোড শেডিং হওয়াও অসম্ভব নয়। ঘুমাতে যাবার সময়ে তাপমাত্রা আরেকটু বাড়িয়ে রাখতে পারেন।

দরজা বন্ধ রাখুন: যে ঘরে এসি আছে, চেষ্টা করুন সে ঘরে সবাইকে নিয়ে বসতে। অন্যান্য ঘরগুলোর দরজা বন্ধ রাখুন। একটি ঘর ঠান্ডা করতে বিদ্যুৎ কম খরচ হবে। দরজা খোলা থাকলে অন্যান্য ঘর ঠান্ডা করতে গিয়ে এসির ওপর বেশি চাপ পড়বে।

দরকার না হলে এসি বন্ধ রাখুন: সারা দিন বা সারা রাত এসি চালিয়ে রাখবেন না। গরম যখন অসহনীয় মনে হয় তখনই এসি ব্যবহার করুন। ঘর থেকে বের হলে এসি বন্ধ করে দিন। বাড়ি থেকে বের হবার সময়ে কোনো রুমের এসি চালানো আছে কিনা ভালো করে চেক করে নিন।

ফ্যান ব্যবহার করুন: এসির তাপমাত্রা অতিরিক্ত না কমিয়ে ২৫ থেকে ২৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস রাখুন এবং ফ্যান ছেড়ে দিন। এতে ঘর দ্রুত ঠান্ডা হবে। এছাড়া রান্নার সময়ে এক্সহস্ট ফ্যান ব্যবহার করুন যাতে কিচেনের গরমটা সারা ঘরে ছড়িয়ে না পড়ে।

দরজা-জানালা বন্ধ রাখুন: অনেক বাড়িতেই জানালা-দরজা এবং দেয়ালের মাঝে ফাঁকফোকর থাকে। এসবের কারণেও ঘর সহজে ঠান্ডা হতে চায় না। এসব ফাঁকফোকর মেরামত করে ফেলুন। এতে এসি ভালো কাজ করবে।

রাত্রে দরজা-জানালা খোলা রাখুন: রাতের বেলায় তাপমাত্রা এমনিতে কম থাকে, সে সময়ে এসি বন্ধ করে দরজা-জানালা খুলে দিতে পারেন। এতে ঠান্ডা বাতাস ঘরে চলাচল করবে।

এসির ফ্যান স্পিড কম রাখুন: তাপমাত্রা বেশি থাকলেও এসির ফ্যান স্পিড বাড়াবেন না। বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকলে শুধু তখনই হাই স্পিড দিতে পারেন।

গ্যাজেট কম ব্যবহার করুন: কম্পিউটার, টিভি, ওয়াশিং মেশিন, ড্রায়ার- এসব দিনের বেলা নয়, রাতের বেলা তাপমাত্রা কমে গেলে তখন ব্যবহার করুন। এসব গ্যাজেট তাপমাত্রা বাড়ায়। আর সাধারণ বাতির বদলে এলইডি লাইট ব্যবহার করতে পারেন।

এসি পরিষ্কার রাখুন: নিয়মিত এসি পরিষ্কার রাখুন। নিজে পরিষ্কার করুন অথবা দক্ষ শ্রমিক ডেকেও পরিষ্কার করাতে পারেন। এসি যে দোকান থেকে কিনেছেন তাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারাই উপায় বলে দেবে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ