মদ খাওয়া ও বিক্রির স্বপক্ষে ভারতীয় মন্ত্রীর অবাক করা যুক্তি

প্রকাশিতঃ ৬:১৪ অপরাহ্ণ, শনি, ১১ জানুয়ারি ২০

মদ খাওয়া ও বিক্রির স্বপক্ষে অবাক করা যুক্তি দাঁড় করিয়েছেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের মন্ত্রী গোবিন্দ সিং। মদ বিক্রির পক্ষে যুক্তি দিয়ে তিনি বলেন, চিকিৎসার জন্য মদ প্রয়োজন। তাই মদ বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো উচিত নয়। তিনি আরো বলেন, কাউকেই জোর করে মদ খাওয়ানো হয় না। সবাই নিজের নিজের ইচ্ছেতেই মদ্যপান করেন।

গোবিন্দ সিং তার যুক্তিকে শক্তশালী করতে ব্যবহার করেছেন গণতন্ত্রকেও। তিনি বলেন, ‌গণতন্ত্রে সবাই স্বাধীন। কী খাবেন আর কী পান করবেন, সেটা পুরোপুরি তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমরা মদ্যপানের ওপর কোনো প্রকার নিষেধাজ্ঞা চাপাতে পারি না।

মদ পান করলে ভালোভাবে কাজ করা যায় বলে জানিয়ে গোবিন্দ সিং বলেন, ‌আমরা এক পেগ না খেলে ভালো থাকতে পারব না। একটু মদ না খেলে সারারাত অস্বস্তি হবে। আর পরেরদিন ঠিক মতো কাজ করা যায় না। আমার এক বন্ধু আছেন। যিনি প্রতিদিন রাতে এক পেগ করে মদ খান। তারপর ভালোভাবে ঘুমান। এর ফলে পরদিন তিনি বেশ তরতাজা থাকেন। কোনো কোনো লোকের আবার চিকিৎসার জন্য মদ প্রয়োজন। এমনকি অনেকেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে এক পেগ করে মদ খান। আমরা কারোর ওপর কোনো প্রকার নিষেধাজ্ঞা চাপানোর বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মদ বিক্রি করা নিয়ে নয়া নির্দেশিকা জারি করেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশ সরকার। যাদের মদ বিক্রি করার লাইসেন্স রয়েছে, তারা রাজ্যুজুড়ে আর দোকান খুলতে পারবেন না। গ্রামীণ অঞ্চল থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে এবং শহরাঞ্চল থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে সেই দোকান খুলতে পারবেন তারা। মূলত: অবৈধ মদ বিক্রি বন্ধ এবং রাজস্ব বৃদ্ধির জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ