মশার ওষুধ ক্রয়ে দুর্নীতি ঢাকতেই মেয়র গুজব বলছেন: মেনন

প্রকাশিতঃ ১০:৪২ অপরাহ্ণ, শুক্র, ২৬ জুলাই ১৯

নিউজ ডেস্ক: ক্ষমতাসীন জোটের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, মশার ওষুধ কেনায় দুর্নীতি ঢাকতেই ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের খবরকে দক্ষিণের মেয়র ‘গুজব’ বলে অবহিত করেছেন। আর স্বাস্থ্যমন্ত্রী এডিস মশার বৃদ্ধিকে পাশের দেশ থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের ন্যয় অধিক সংখ্যক প্রজনন ক্ষমতার সাথে তুলনা করেছেন। অথচ দেশের মানুষের মৃত্যু তার কাছে কিছুই মনে হয় না। সে মশার সাথে একটি গোষ্ঠিকে তুলনা করে দিলেন।

যুব মৈত্রীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে শুক্রবার বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর ডেঙ্গুবিরোধী জনসচেতনতা কার্যক্রমের উদ্বোধন করতে গিয়ে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি এ কথা বলেন।

সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মশার ঔষধের কার্যকারীতা নিয়ে সাফাই গেয়েছেন। অথচ সড়ক-সেতু মন্ত্রী-অর্থমন্ত্রী উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ডেঙ্গু-বন্যা মোকাবিলায় উর্ধতন কর্মকর্তাদের নিয়ে সমন্বয় সভা করেছে। তারপরও গবুচন্দ্র এই মেয়র-মন্ত্রীদের জন্যই মশক-নিধন ডেঙ্গু নিয়ে এই ল্যাজেগোবরে অবস্থা।

হাইকোর্টে সিটি করপোরেশনের আইনজীবীরা বলছেন, উত্তরে মশার ওষুধ ছিটালে দক্ষিণে যায়, দক্ষিণে ছিটালে উত্তরে যায়, কত বড় উপহাস বলেন? নগরবাসীর সাথে সিটি করপোরেশন যা করছে, তা ঠিক নয়।

মেনন বলেন, ডেঙ্গু নিয়ে মানুষের যাতা অবস্থা, অথচ তারা মিথ্যাচার করছে। নানা রকম উপদেশ দিচ্ছে। অথচ মশা নিধনের দায়িত্বটুকু যথাযথ ভাবে পালন করছে না।

এ সময় তিনি আরও বলেন, নিকট অতীতে আমরা দেখতে পেয়েছি, এদেশের অতীত ইতিহাসে বন্যা, কলেরা মহামারী, দুর্ভিক্ষবস্থায় যুবক রাজনৈতিক কর্মীরাই তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে। যারা ‘বঙ্গবন্ধু’ বলতে বলতে অজ্ঞান হয়ে পড়ছেন আজকাল, তাদের বঙ্গবন্ধুর জীবন থেকে শিক্ষা নিলে বরং দেশের মানুষের উপকার হবে।

ঢাকা মহানগরে যুব মৈত্রী ডেঙ্গু বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও জনপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে প্রচার অভিযানের পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকা ও বাস ভবনে পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নেবে। এছাড়া যুব মৈত্রী বানভাসী মানুষের জন্যও ত্রাণ তৎপরতা শুরু করেছে। ডেঙ্গুবিরোধী জনসচেতনতা র‌্যালী সেগুনবাগিচা-শিল্পকলা একাডেমী-জাতীয় প্রেসক্লাব-পল্টন এসে শেষ হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ