মাদক নিয়ন্ত্রণে মিয়ানমারকে সঙ্গে চায় বাংলাদেশ-ভারত

প্রকাশিতঃ ১২:৫৯ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১১ অক্টোবর ১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণে মিয়ানমারকে সঙ্গে চায় বাংলাদেশ ও ভারত। সীমান্তে ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরণের মাদকদ্রব্য উৎপাদন ও পাচার রোধে ত্রিপক্ষী বৈঠক করার প্রস্তাব দিয়েছে ভারত। এ বিষয়ে বাংলাদেশও সম্মত বলে জানান মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. জামাল উদ্দীন আহমদ।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও ব্যুরোর মহাপরিচালক পর্যায়ের বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান। বৈঠকে ভারতের ১১ সদস্যের নেতৃত্ব দেন সে দেশের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর মহাপরিচালক রাকেশ আস্তানা। আর বাংলাদেশের ২১ সদস্যদের নেতৃত্ব দেন জামাল উদ্দীন।

মাদক নিয়ন্ত্রণে ২০১৬ সালে সম্পাদিত দ্বিপাক্ষিক চুক্তির পর এটি ছিল ঢাকা-দিল্লীর ষষ্ঠ বৈঠক। বৈঠক শেষে আয়োজিত যৌথ সংবাদ সম্মেলনে জামাল উদ্দীন আহমেদ আরো বলেন, উভয় দেশের প্রতিনিধির মধ্যে একটি সফল বৈঠক হয়েছে। এতে বেশ কিছু বিষয়ে দু’দেশের উভয় এজেন্সী বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিন্ধান্তে পৌঁছুতে পেরেছে। আমরা ভারতীয় সীমান্তে মাদকদ্রব্য উৎপাদন ও চোরাচালান বন্ধের প্রস্তাব করলে ভারত তাতে সম্মতি জানায়। তবে রাকেশ আস্তানা মিয়ানমারের সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক করে এ ক্ষেত্রে কার্যকর ব্যাবস্থা নেওয়ার প্রস্তাব করেছেন। আমরা তাতেও রাজি। ভারতকেই তা আয়োজনের উদ্যোগ নিতে বলেছি। সে ক্ষেত্রে প্রয়োজনে বাংলাদেশকে হোস্ট হতে হলে আমরা তাও হবো।

এসময় তিনি আরো বলেন, সীমান্তে মাদক পাচারের গোয়েন্দা তথ্য যথাসময়ে উভয় দেশের মধ্যে আদান-প্রদান এবং দু’সংস্থা তথ্য পাওয়ার পরই ব্যাবস্থা গ্রহণের সিন্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে নতুন বা সিনথেটিক মাদকরোধ এবং সীমান্তে গাঁজা ও কপি চাষ বন্ধে ভারত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে। আর সীমান্তে ফেনসিডিল বন্ধেও ভারত সম্মত হয়েছে। উভয় দেশ দু’দেশের কারাগারে আটক মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারিদের তালিকা আদান-প্রদান করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বৈঠক শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর মহাপরিচালক রাকেশ আস্তানা সাংবাদিকদের বলেন, মাদকরোধে সফল আলোচনা হয়েছে। উভয় দেশ তথ্য আদান-প্রদান, তদন্ত ও মাদক পাচার বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের সিন্ধান্ত নেয়। মাদক চোরাচালানে মানিলন্ডারিং বা অবৈধ অর্থায়ন বন্ধ করতে তাঁর দেশের সংশ্লিষ্ট সং¯’ার সঙ্গে কথা বললেন বলেও জানান তিনি।

সময় জার্নাল/ মহিউদ্দিন অদুল

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ