মাদারীপুর জেলা লকডাউন

প্রকাশিতঃ ৬:১১ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১৬ এপ্রিল ২০

সময় জার্নাল ডেস্ক: মাদারীপুর জেলাকে অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করেছেন জেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন। আজ রাত ১০টা থেকে মাদারীপুরে লকডাউন শুরু হবে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে।

এদিকে মাদারীপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে চারজনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় তিনজন এবং রাজৈর উপজেলায় একজন। আক্রান্তদের মধ্যে তিন বছরের এক শিশু রয়েছে।

এর আগে বাংলাদেশের প্রথম ও সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শিবচর উপজেলা গত ১৯ মার্চ এবং ১২ এপ্রিল কালকিনি ও রাজৈর উপজেলা লকডাউন ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন।

মাদারীপুর জেলায় করোনা ভাইরাসে মোট ২৩ জন আক্রান্তের খবর জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক ও জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মো. ওয়াহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, শিবচর উপজেলায় ১৫ জন, সদরের সংখ্যা ৫, কালকিনি একজন আক্রান্ত হয়েছেন এবং রাজৈর উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা ২ জন। বর্তমানে সদর উপজেলায় ৫ জন ব্যক্তি করোনা শনাক্ত হওয়ায় পূর্বের তিনটি উপজেলাসহ সদর উপজেলা অর্থাৎ মাদারীপুর জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হলো। প্রশাসন এখন থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ও লকডাউন কার্যকর করতে আরও কঠোর ভূমিকা পালন করছে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে জারি করা গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- লকডাউনের সময় মাদারীপুর জেলায় জনসাধারণ প্রবেশ ও প্রস্থান নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হলো। এ সময় জাতীয় ও আঞ্চলিক সড়ক, মহাসড়ক ও নৌপথে অন্য কোন জেলা হতে কেউ এ জেলায় প্রবেশ বা অন্য জেলায় গমন করতে পারবেন না। এছাড়া সকল ধরণের গণপরিবহন ও জনসমাগম বন্ধ থাকবে। তবে জরুরী পরিবেসা চিকিৎসা সেবা, কৃষি, পণ্য, খাদ্য সরবরাহ ও সংগ্রহ, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন, ইন্টারনেট, ব্যাংকিং সেবা, মোবাইল ব্যাংকিং, ওষুধ শিল্প সংশ্লিষ্ট যানবাহন, কর্মী ইত্যাদি এর আওতা বহির্ভূত থাকবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম, জেলা সিভিল সার্জন ডা. শফিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো. মাহবুব হোসেন, পৌর মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ, সেনাবাহিনীর দায়িত্বরত কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ