লকডাউনে ময়মনসিংহ পতিতা পল্লীতে একদল যুবক

প্রকাশিতঃ ৪:২৬ অপরাহ্ণ, রবি, ২৪ মে ২০

মো: মঈন উদ্দিন রায়হান, ময়মনসিংহ : করোনায় লকডাউনের কারনে ময়মনসিংহে পতিতা পল্লীতে একদল যুবক প্রবেশ করেছে। অন্যসময় পতিতা পল্লীতে প্রবেশ তো দূরের কথা, এই সকল যুবকদের তাকানো ছিলো অনেকটা দু:স্বপ্নের মতো। কিন্তু এই যুবকরাই একত্রিত হয়ে করোনার লকডাউনের সুযোগে প্রবেশ করেছে ময়মনসিংহের গাঙিনাপাড় রমেশ সেন রোডস্থ (স্বদেশী বাজার) পতিতা পল্লীতে।

এই যুবকরা তাদের ব্যক্তি ও পেশাগত অবস্থানে অত্যন্ত সফল। কেউ উকিল, কেউ শিক্ষক, গ্রাফিক্স ডিজাইনার,কেউ সাংস্কৃতিক কর্মী, কেউ চিত্রশিল্পী, কেউ সংঙ্গীত শিল্পী, কেউবা সফল সংগঠক।

এই যুবকরা বলছে, সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবিকতার কারনেই তাদের পতিতা পল্লীতে প্রবেশ। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারনে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষেরা কর্মহীন হয়ে পড়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠন সাধারণ মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এলেও পতিতা পল্লীতে বসবাস করা যৌনকর্মীদের দিকে কারো নজর নেই বললেই চলে। আর এই জন্যই সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবিককতা এবং ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে সামান্য সাহায্য নিয়ে তাদের
পাশে দাঁড়াতেই তাদের পতিতা পল্লীতে প্রবেশ।

শনিবার (২৩ মে) দুপুরে “নিমু দিমু” এবং “টঙ-ঘর টকিজ” নামের দুই সংগঠনের সদস্যরা আসন্ন ঈদ উপলক্ষে তাদের সম্মিলিতভাবে সংগৃহিত টাকা নগরীর রমেশ সেন রোডস্থ (স্বদেশী বাজার) পতিতা পল্লীর ২০৫ জন যৌনকর্মী ও তাদের পরিবারের হাতে নগদ ৫০০ টাকা করে তুলে দেয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, চিত্রশিল্পী ম. রাজন, কবি শামীম আশরাফ, টঙ-ঘর টকিজ এর কবি হাসান জামিল, ময়মনসিংহ বিভাগীয় চারুশিল্পী পর্ষদ এর সদস্য সচিব গৌতম কুমার দেবনাথ, বিডি ক্লিন ময়মনসিংহ এর মতিউর রহমান ফয়সাল, সাফরান আহমেদ, চিত্রশিল্পী বিশ্বজিৎ কর্মকার তপু, নাজমুল হোসেন রাহাত, সংস্কৃতি কর্মী তুষার,সংঙ্গীত শিল্পী সাখাওয়াত হোসেন মিঠু প্রমুখ।

নিমু দিমু সংগঠনের শামীম আশরাফ বলেন, আমার মনে হয় ওরা জীবনে প্রথমবার সম্ভবত ঈদ পেলো, বিশ্বাস করেন চোখে মুখে যে আনন্দের ছাপ দেখেছি তা বলে প্রকাশ করার মত না, মাত্র ৫০০ টাকায় এত খুশি হয় মানুষ!!

নিমু দিমু সংগঠনের মো. রাজন বলেন, ঈদ ধনী-গরীব, সকল পেশার মানুষের। তাই করোনাকালীন এই বিপর্যয়ে সমাজের পিছিয়ে পড়া যৌন কর্মীরা যেন আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয়, সেই লক্ষেই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।