শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে চট্টগ্রামের কাছে রাজশাহীর হার

প্রকাশিতঃ ১০:৫৯ অপরাহ্ণ, বুধ, ২ ডিসেম্বর ২০

১৭৭ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য; জবাব দিতে নেমে জয়ের আশা জাগিয়ে তোলেন মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু লড়াই জমিয়ে তুলেও শেষ করতে পারলেন না তাঁরা। শেষের রোমাঞ্চে রাজশাহীকে হারিয়ে টুর্নামেন্টে টানা চতুর্থ জয় তুলে নিল গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

বুধবার বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের দশম ম্যাচে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীকে এক রানে হারিয়েছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। চলতি টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত অপরাজিত চট্টগ্রাম। চার ম্যাচের সবই জিতে আট পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে মোহাম্মদ মিঠুনের দল। অন্যদিকে দুইয়ে থাকা রাজশাহী পেল নিজেদের দ্বিতীয় হারের স্বাদ।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে রান তাড়া করতে নেমে দারুণ শুরু করেন দুই ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ও আনিসুল ইসলাম। ওপেনিং জুটিতে দুজন মিলে তোলেন ৫৬ রান। ষষ্ঠ ওভারে নাজমুলকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মুস্তাফিজুর রহমান। ফেরার আগে ১৪ বলে ২৫ রান করেন রাজশাহীর অধিনায়ক।

অবশ্য নাজমুল ফিরলেও ছন্দ হারাননি আনিসুল। ৩৪ বলে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি তুলে নেনে তিনি। এরপর মোহাম্মদ আশরাফুলকে নিয়ে দলকে শত রানের ঘরে নিয়ে যান। দলীয় ঠিক ১০০ রানের মাথায় ২০ রানে ফেরেন আশরাফুল।

দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে জয়ের আশা জাগিয়েছেন আনিসুল। কিন্তু পারলেন না শেষ করতে। ১৪তম ওভারে আনিসুলের প্রতিরোধ ভাঙেন জিয়াউর। ফেরার আগে ৪৪ বলে ছয় বাউন্ডারি আর এক ছক্কায় ৫৮ রান করেন তিনি। এরপর বাকিদের ওপর ভর করে শেষ পর্যন্ত ১৭৫ রানে থামে রাজশাহী।

এর আগে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামকে উড়ন্ত শুরু এনে দেন দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার। ইনিংসের প্রথম ওভার থেকেই আগ্রাসী ব্যাট করেন দুই ওপেনার। শুরুর জুটিতে দুজন মিলে করেন ৬২ রান। অষ্টম ওভারেই এই জুটি ভাঙেন মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। মিডঅফে আনিসুলের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান সৌম্য। ফেরার আগে ২৫ বলে চার বাউন্ডারি ও দুই ছক্কায় ৩৪ রান করেন তিনি।

সৌম্য ফিরলেও ছন্দ হারাননি লিটন। ৩৫ বলে সাত বাউন্ডারিতে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন ডানহাতি এই ওপেনার। এর মধ্যে আউট হয়ে ফিরে যান অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন (১১) ও শামসুর রহমান (১)।

এরপর সৈকতকে নিয়ে এগিয়ে যান লিটন। সৈকত নিজেও বেশ আগ্রাসী মেজাজে খেলেন। শেষ পর্যন্ত এই ব্যাটসম্যানে ভর করে রাজশাহীকে চ্যালেঞ্জ দিল চট্টগ্রাম। ইনিংস শেষে ৫৮ বলে ৭৮ রান করেন লিটন। ২৮ বলে ৪২ রান করেন সৈকত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম : ২০ ওভারে ১৭৬/৫ (লিটন ৭৮, সৌম্য ৩৪, মিঠুন ১১, শামছুর ১, সৈকত ৪২, সৈকত আলি ০ ; মেহেদী ২-০-১৯-০, এবাদত ৪-০-৪৩-০, ফরহাদ ৪-০-৪৪-১, মুকিদুল ৪-০-৩০-৩, আরাফাত ৩-০-১৮-০, আনিসুল ৩-০-২২-১)।

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী : ২০ ওভারে ১৭৫/৭ (নাজমুল ২৫, আনিসুল ৫৮, আশরাফুল ২০, ফজলে ১১, মেহেদী ২৫, নুরুল ৮, ফরহাদ ১২ ; নাহিদ ৩-০-২৫-০, শরিফুল ৪-০-৪১-২, মুস্তাফিজ ৪-০-৩৭-৩, সৈকত ৪-০-৩১-১, তাইজুল ২-০-১৭-০, সৌম্য ৩-০-১৯-০)।

ফল : এক রানে জয়ী গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।