সংকট নিরসনে রিকশাচালকদের নগর ভবনে চায়ের আমন্ত্রণ

প্রকাশিতঃ ৪:০৪ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ৯ জুলাই ১৯

নিউজ ডেস্ক: রাজধানীর তিন সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলনরত রিকশাচালকদের নগর ভবনে চায়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। একই সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনার সুযোগ রয়েছে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে নগরীতে সুশৃঙ্খল গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে আয়োজিত এক আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা বিনিময় বিষয়ক কর্মশালায় এ আহ্বান জানান ডিএসসিসি মেয়র।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাঈদ খোকন বলেন, তাদের যদি কোনো কথা বা দাবি থাকে, আমরা সেগুলো শুনবো। আমি তাদের নগর ভবনে চায়ের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আলোচনার মাধ্যমে আমরা সমাধানের পথ বের করবো।

তবে দুই রুটের তিন সড়কে রিকশাচলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত বহাল রাখার ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, যে সড়কগুলোতে রিকশা বন্ধ করা হয়েছে সেখানে যাত্রী বা নাগরিকদের তেমন একটা ভোগান্তির চিত্র দেখা যায়নি। নগরবাসীর চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক গণপরিবহন রয়েছে। এছাড়া আমরা পরীক্ষামূলকভাবে টিকিট সিস্টেম ফ্রাঞ্চাইজির বাস চালু করতো যাচ্ছি। পথচারীদের হাঁটার সুবিধার জন্য ফুটপাত দখলমুক্ত করছি। তাই এসব রুটে ফের রিকশা চলবে তেমনটা আপাতত আমরা মনে করছি না। তবুও সাতদিন পার হলে আমাদের কমিটির (ঢাকা ট্রাফিক কন্ট্রোল অথরিটি-ডিটিসিএ) সঙ্গে পুনরায় পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।

গত রোববার থেকে রাজধানীর দুই রুটের তিন সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এর প্রতিবাদে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রামপুরা রুটে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছেন রিকশাচালকরা।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি (টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা) বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ এবং বিশ্ব ব্যাংকের রিজিওনাল ডিরেক্টর জন রুম। এছাড়াও সভায় বাস রুট রেশনালাইজেশন বিষয়ে গঠিত কমিটির সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।

রাজধানীর কয়েকটি সড়কে রিকশাচলাচল বন্ধ করার ঘোষণায় মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো বিভিন্ন সড়ক অবরোধ করেছেন রিকশাচালকরা। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন রাজধানীবাসী। গন্তব্যে যেতে বাসে চড়ে দীর্ঘসময় বসে থাকার পর অনেকে হেঁটেই রওয়ানা হয়েছেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ