সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: গণপূর্তমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ ১২:৪৭ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ১৯ নভেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে অর্জিত দেশে কিছুই ছিল না। এখন অনেক কিছু হয়েছে। বাংলাদেশে অনেক সরকার এসেছে, কিন্তু কিছুই করেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে প্রতিস্কুলে ছেলে ও মেয়েদের জন্য আলাদা টয়লেট নির্মাণ করে দিয়েছেন। প্রতিটা মহাসড়কে টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে। প্রতিটা পেট্রোল পাম্পে টয়লেট বাধ্যতামূলক করে দিয়েছেন। এভাবেই পরিশ্রম করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর তেজগাঁও বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া স্টুডিওতে হারপিক ও আরটিভির যৌথ উদ্যোগে বিশ্ব টয়লেট দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণপূর্তমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

রেজাউল করিম বলেন, বিশ্ব টয়লেট দিবসের প্রতিপাদ্য অনেক আগেই ধারণ করেছি। এজন্য শেখ হাসিনা টয়লেট নির্মাণ করে দিয়েছেন। সরকার আরও টয়লেট নির্মাণ করবে। সামাজিক সূচকে আমরা ভারতের চেয়েও এগিয়ে।

তিনি বলেন, নতুন প্রজন্মকে স্বাস্থ্যসম্মতভাবে গড়ে তুলতে হবে। তা না হলে নতুন নেতৃত্ব আসবে না।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে সারা বিশ্ব অবাক। কীভাবে বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন করেছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক কামরুল আহসান খান বলেন, প্রতিদিন একজন মানুষকে তিন-চার লিটার পানি খেতে হয়। যদি কেউ না খায়, কিডনির নানা সমস্যা হয়। অনেকে পানি খায় না, বাসার বাইরে গেলে টয়লেট মেলে না। কারণ পানি খেলে প্রস্রাব ধরে। যদি কেউ প্রস্রাব সময়মতো না করে, ইউরিন আটকে রাখে, তাতে ইউটিআই রোগে আক্রান্ত হবে। তাই শহরে পর্যাপ্ত পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করতে হবে। বাচ্চারা স্কুলে পর্যাপ্ত পানি খায় কি-না, তা নজর রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- আরটিভির ভাইস চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, সংসদ সদস্য শামীমা শাহরিয়ার, সাবেক সংসদ সদস্য নূরজাহান বেগম মুক্তা, সাবেক সংসদ সদস্য মেহজাবিন খালেদ, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ডেইজি সারওয়ার, ব্যানবেইজের মহাপরিচালক ফসিউল্লাহ ও রেকিট বেনকিজারের পরিচালক নুসরাত জাহান প্রমুখ।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ