সরকারের ইচ্ছায় বেগম জিয়ার জামিন আটকে আছে: গয়েশ্বর

প্রকাশিতঃ ৬:২৬ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১৫ নভেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: সরকারের ইচ্ছা করেই খালেদা জিয়ারকে আটক রেখেছে অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, দেশে আইন রয়েছে কিন্তু তার সঠিক প্রয়োগ নেই। যার উদাহরণ বেগম জিয়াকে এভাবে আটক রাখা। আইনিভাবে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মুক্তির পথ খোলা থাকলেও সরকারের ইচ্ছায় তা আটকে আছে এ কথাটা আমরা আগে বুঝিনি।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খা হলে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন পেঁয়াজ খাবেন না। তিনি তার বাবুর্চিকে বলে দিয়েছেন পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করতে। এখন অন্যায়-অত্যাচারের প্রতিবাদ করলে বলবে দেশে থাকেন কেন? যদি বলা হয়, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নেই, তাহলে বলবে সংবাদপত্রে চাকরি করেন কেন ? ভোট ছাড়া যদি সংসদ হয় তবে পেঁয়াজ ছাড়া তরকারি হবে না কেন? এসবের কারণে উনি এসবই বলবেন।

পেঁয়াজ সিন্ডিকেটের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তবে পেঁয়াজের অপ্রতুলতা থেকে পেঁয়াজের অভাবের প্রচারটা সিন্ডিকেটকে আরো সুযোগ করে দিয়েছে। পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণ সিন্ডিকেটের কারসাজি। কারণ কোনো জিনিসের টান পড়লে তার দাম এমনিতেই বেড়ে যায়।

চলমান বিএনপির রাজনীতির সম্পর্কে তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে বিএনপির আন্দোলন দুই ধারায় প্রবাহিত হচ্ছে। একটি প্রেসক্লাবকেন্দ্রিক আন্দোলন, সংবাদ সম্মেলন এবং আরেকটি বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়কেন্দ্রিক। রাজনীতি হয়ে উঠেছে আত্মরক্ষামূলক। এই মানসিকতা বাদ দিয়ে আক্রমণাত্মক রাজনীতি করলে জয়ী হওয়া সম্ভাবনা থাকে।

সাদেক হোসেন খোকাকে স্মরণ করে তিনি বলেন, খোকা মেয়র থাকাকালে ঢাকার অনেক রাস্তার নামকরণ করেছে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে। শুধু একজন মুক্তিযোদ্ধার নামের ঢাকা রাস্তার কোনো নামকরণ করেননি। তিনি হলেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান।

স্মরণসভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেন, সাদেক হোসেন খোকার বড় ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ