সরকার সুষ্ঠু নির্বাচনে বদ্ধপরিকর : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

প্রকাশিতঃ ৬:০০ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৩০ জানুয়ারি ২০

দুলাল বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ : স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, সরকার সুষ্ঠু নির্বাচনে বদ্ধপরিকর। কিন্তু অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয় স্বাধীনতা বিরোধীরা ও বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সাথে যে শক্তিগুলো জড়িত ছিল তারা সব সময় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে বাঁধাগ্রস্থ ও নির্বাচনকে বিভিন্ন সময় বিতর্কিত করতে চেষ্টা করেছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা যত চেষ্টাই করুক না কেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করে যাবে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) বেলা ১২ টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় এলজিইডি,র প্রধান প্রকৌশলী সুশংকর চন্দ্র আচার্য, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান, গোপালগঞ্জ পৌর মেয়র লিয়াকত আলী লিকু, গোপালগঞ্জ এলজিইডি,র প্রধান প্রকৌশলী এ কে ফজলুল হক, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, ইউএনও নাকিব হাসান তরফদার, উপজেলা প্রকৌশলী হাসান ইবনে মিজান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা সিটি নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, জয়ের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ শতভাগ আশাবাদী। কারণ আওয়ামী লীগ যে ২ জন প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছে তারা সর্বাধিক উত্তম প্রার্থী। ঢাকাকে উন্নত নগরীতে রূপান্তরিত করার জন্য যোগ্যতার মাপকাঠিতে আতিকুল ইসলাম ও শেখ তাপস শীর্ষে অবস্থান করছে। ঢাকা উত্তর সিটি আগে আবর্জনার নগরী ছিল কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তে আনিসুল ইসলাম ও তার পরবর্তীতে আতিকুল ইসলামের চেষ্টায় আবর্জনা অনেকটা দূরীভূত হয়েছে। শেখ তাপস একজন সফল সাংসদ হিসাবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে মানুষের ব্যাপক প্রশংসা ও সমর্থন অর্জন করেছে। তাই জয়ের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ শতভাগ আশাবাদী।

মো.তাজুল ইসলাম আরো বলেন, লেভেল ফিল্ড প্লেয়িং একটা আপেক্ষিক শব্দ। বিএনপি লেভেল ফিল্ড প্লেয়িং এর কথা বলেন কিন্তু তারা তো তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে বিতর্কিত করার জন্য বিচারপতিদের বয়স বাড়িয়ে দিয়েছিল। বিএনপি,র এক সময়ের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কে.এম হাসানকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বানানোর জন্য চেষ্টা করেছে এবং বেগম জিয়ার নির্দেশ অনুযায়ী তৎকালীন সময়ে উপদেষ্টা মন্ডলী গঠিত হয়েছিল যার বিরুদ্ধে গোটা জাতি অবস্থান নিয়েছিল। এছাড়া বিএনপির প্রার্থীরা মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চাচ্ছে, মাঠে ময়দানে কাজ করছে। যদি লেভেল ফিল্ড প্লেয়িং না থাকতো তাহলে তারা এই কাজগুলো কিভাবে করছে। তাই লেভেল ফিল্ড প্লেয়িং এর কথা তাদের মুখে মানায় না।

এরপর স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী জাতির পিতার স্মৃতি বিজরিত মধুমতি নদীর পাশে নির্মিত ঘাট পরিদর্শন করেন।

সময় জার্নাল/আরইউটি/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ