পাঁচবিবি ভূমি অফিস
সহকারী কমিশনারসহ ৮টি পদ শুন্য দেড় বছর ধরে

প্রকাশিতঃ ৫:২৪ অপরাহ্ণ, শুক্র, ৩১ জানুয়ারি ২০

জয়পুরহাট প্রতিনিধি: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলা ভুমি অফিসে সহকারি কমিশনার (ভুমি) বা এসি ল্যান্ডসহ ৮টি পদেই লোক নেই প্রায় দেড় বছর যাবৎ। উপজেলার এই গুরুত্বপূর্ন সরকারি অফিসের ১২টি পদের মধ্যে এসি ল্যান্ড, অফিস সহকারি, সার্ভেয়ার, সার্টিফিকেট পেশকার, ক্রেডিট চেকিং সহকারিসহ মোট ৮টি পদ শুন্য রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসিল্যান্ডের অতিরিক্ত দ্বায়িত্ব পালন করলেও জনবলের অভাবে উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর সভার ভুমি সংক্রান্ত সেবা কার্যক্রম চলছে ধীর গতিতে। নামজারি, জমা, খাজনা খারিজসহ জমিজাম সংক্রান্ত ষ্পর্শকাতর বিষয়গুলির জন্য সাধারন মানুষকে এ অফিসে সেবা নিতে এসে ঘুড়তে হচ্ছে দিনের পর দিন। অফিস কর্মকর্তার অভাবে সঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় কাজ হচ্ছে না। এতে মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়েছে সেবাগ্রহণ কারীরা।

পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জি ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, বাগজানা ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হক, পাঁচবিবি পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান হাবিবসহ জনপ্রতিনিধিরা জানান, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে এ অফিস থেকে সহকারি কমিশনার (ভুমি) বা এসি ল্যান্ড এ,কে,এম হেদায়েতুল ইসলাম বদলি হয়ে অন্যত্র চলে যান। এ ছাড়া এর আগে ও পরে একই অফিসের ৭/৮টি পদে লোক লোক না থাকায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারন মানুষ।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আরো বলেন, এসি ল্যান্ড বদলী হয়ে যাওয়ার পর বর্তমানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাদিম সারওয়ার এসি ল্যান্ডের অতিরিক্ত দ্বায়িত্ব পালন করে যাওয়ায় জনদূর্ভোগ কিছুটা লাঘব হলেও একদিকে ইউএনও বাড়তি চাপে পরেছেন অন্যদিকে সেবাগ্রহনকারীরাও সময় মত পাচ্ছেন না তাদের কাঙ্খিত সেবা।

এ অফিসে লোকবল না থাকায় সাধারনরা সময় মত জমি জমার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র সরবরাহ পাচ্ছেন। ফলে তারা চিকিৎসা, ছেলেমেয়ের লেখাপড়ার খরচ, বিয়ে, বিদেশ যাত্রাসহ জরুরী অন্যান্য কাজে টাকার প্রয়োজনে সময় মত জমি বেচা-কেনা করতে পারছেন না। এ ছাড়াও একই কারনে অনেককেই পড়তে হচ্ছে বহুমুখি বিপাকে ।

ভূমি অফিসের বারান্দায় দাড়িয়ে থাকা উপজেলার রতনপুর গ্রামের প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকা ফারজানা খাতুনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘মাঠের একটা জমি বিক্রয় করে বাড়ি করার জন্য রাস্তার ধারে একটা জমি পেয়েছি সেটুকু ক্রয় করব কিন্ত ৪ মাস যাবৎ আমার জমি বিক্রির জন্যই কাগজ তৈরী করতে পারছিনা এসি ল্যান্ড অফিসের লোকজন না থাকায়।’

পাঁচবিবি উপজেলার আওলাই ইউনিয়নের আফছার আলী, বেড়া খাই গ্রামের সাইফুল, চানপাড়া এলাকার আব্দুস সামাদসহ এলাকাবাসীরা জানান, সাধারন মানুষের দূর্ভোগের কথা ভেবে কর্তৃপক্ষ সহকারি কমিশনার (ভুমি) বা এসি ল্যান্ড অফিসে প্রয়োজনীয় লোকবল যথা শীঘ্র সম্ভব নিযোগ দিবেন বলে তারা আশা করছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাদিম সারওয়ার এ বিষয়ে বলেন, ‘পদগুলো শুন্য আছে উর্ধতন কর্তৃপক্ষ আগে থেকেই জানলেও আমি আবারও শুন্য পদগুলো পুরনের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ