সাংবাদিক রিগ্যান নির্যাতনে আরডিসি নাজিমসহ ৩ কর্মকর্তা ওএসডি

প্রকাশিতঃ ৩:১১ অপরাহ্ণ, সোম, ১৬ মার্চ ২০

সময় জার্নাল ডেস্ক: সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম রিগ্যানকে নির্যাতনের ঘটনায় নেতৃত্বদানকারী জেলা প্রশাসনের আরডিসি (সিনিয়র সহকারী কমিশনার) নাজিম উদ্দীনকে ওএসডি করা হয়েছে। তাঁর সঙ্গে সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমা ও সহকারী কমিশনার এ এস এম রাহাতুল ইসলামকেও ওএসডি করা হয়।

গতকাল রোববার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর গতকাল কুড়িগ্রাম হাসপাতালে সাংবাদিকদের কাছে রিগ্যান নির্মম নির্যাতনের বর্ণনা দেন।

চিকিৎসাধীন রিগ্যানের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন ছিল।

তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের আরডিসি (সিনিয়র সহকারী কমিশনার) নাজিম উদ্দীনের নেতৃত্বে তাকে মধ্যরাতে বাড়ি থেকে তুলে আনা হয় এবং পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয় । চোখ বেঁধে জোর করে গাড়িতে তুলে গুলি করে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়।

আরিফুল রিগ্যান বলেন, আরডিসি নাজিম উদ্দীনের নেতৃত্বে একদল লোক দরজা ভেঙে বাসায় ঢোকেন। জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমাও এই দলে ছিলেন। ঘরে ঢুকেই নাজিম উদ্দীন তাঁর মাথায় কিল-ঘুষি মারতে শুরু করেন। মারতে মারতে টেনেহিঁচড়ে গাড়িতে তুলে চোখ-হাত-পা বেঁধে ফেলা হয়।

আরিফুল বলেন, ‘এরপর আমাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে এনকাউন্টার দিতে চায়। আমাকে বারবার বলে, আজ তোর জীবন শেষ। তুই কালেমা পড়ে ফেল, তোকে এনকাউন্টার দেওয়া হবে। আমি চোখের কাপড় একটু খুলে বুঝতে পারি, এটা ডিসির কার্যালয়। তখন একটু আশ্বস্ত হই যে আমাকে অন্তত এনকাউন্টারে দেওয়া হবে না। মারধরের সময় নাজিম উদ্দীন বলেন, “তুই আমাদের অনেক জ্বালাচ্ছিস। ডিসির বিরুদ্ধে লিখিস। তুই বড় সাংবাদিক হয়ে গেছিস। আজ তোর সাংবাদিকতা ছোটাব।”

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ