সাইক্লোন আম্ফান একটি বিশেষ বৈশিষ্ট সম্পন্ন সামুদ্রিক ঝড়

প্রকাশিতঃ ৯:১৭ অপরাহ্ণ, রবি, ২৪ মে ২০

জ‌বি প্র‌তি‌নি‌ধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জলবায়ু ও দুর্যোগ সমীক্ষা ইউনিট (সিডিএসইউ) এর উদ্যোগে ’সাইক্লোন আম্পান আবহাওয়াগত বৈশিষ্ট্য ও জরুরি সাড়া’ বিষয়ে এক অনলাইন সেমিনার গতকাল শনিবার (২৩ মে) রাতে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্ফান আবহাওয়াগত বিচারে একটি ব্যতিক্রমধর্মী সামুদ্রিক ঝড়। বিশেষ করে এর উৎপত্তি, গতিপথ, ভার্টিক্যাল বিস্তার, মেঘ সঞ্চারণ ক্ষমতা এবং স্থলভাগে দীর্ঘস্থায়ী অবস্থানসহ বিভিন্ন বৈশিষ্ট এই ঝড়কে একটি ব্যতিক্রম হিসেবে দেখছেন আবহাওয়াবিদ ও জলবায়ুবিদগণ।

ভারতের স্থলভাগ সন্নিকটে এসে ঝড়টির উপরিভাগের মেঘের স্তর সরে যাওয়ার এটির শক্তিমত্তা কমেছে বলে মনে করেন কোন কোন বক্তা। এ কারণে এই ঝড়টি গভীর সাগরে সুপার সাইক্লোন প্রকৃতির হওয়া সত্ত্বেও স্থলভাগে আছড়ে পড়ার সময়ে ক্যাটাগরী-২ আকারে ভারতের পশ্চিমভঙ্গে আঘাত করে।

বক্তারা আরও বলেন, সুন্দরবনের কারণে বাংলাদেশ অংশে এই ঝড়ের গতি কমেছে, তবে সুন্দরবন অতিক্রম করার পরও এর শক্তিমত্তা যথেষ্ট ছিল। যার ফলে উপকূলীয় জেলার বাইরে যশোর, ঝিনাইদহ, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, মাগুরা, রাজশাহী, পাবনাসহ বেশ কয়েকটি জেলা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে এই ঝড়ের বেশিসময় ধরে অবস্থানকাল ও ধ্বংস ক্ষমতা আবহাওয়াবিদ ও জলবায়ুবিদগণকে ভাবিয়ে তুলেছে।

সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মো. শাহেদুর রশিদ, ঘূর্ণিঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ ড. মো. আব্দুল মান্নান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এসোসিয়েট প্রফেসর মোহম্মদ আব্দুল কাদের, যশোর জেলার পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন, পাবনা সাইন্স ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. মো. নাজমুল ইসলাম, পটুয়াখালী সাইন্স ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. আশিকুর রহমান প্রমুখ।

সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান ও জলবায়ু ও দুর্যোগ সমীক্ষা ইউনিট (সিডিএসইউ) প্রধান প্রফেসর ড. মো. মনিরুজ্জামান।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।