হাওরের বুকে ঝিলমিল আলো

প্রকাশিতঃ ২:৫৩ অপরাহ্ণ, শুক্র, ২৭ সেপ্টেম্বর ১৯

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: বছরের ৬ মাস গ্রামের চারদিক ডুবে থাকে হাওরের পানিতে। ওই সময় গ্রামের মানুষের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম নৌকা। ঘরের পাশেই আলোর ঝলকানি থাকা সত্বেও সূর্য ডুবলেই নেমে আসে ঘন অন্ধকার। চেয়ে দেখা ছাড়া করার কিছুই নেই। কিন্তু অন্তেহরি ও মুজেফরপুরের সাড়ে ৫শ পরিবারের কয়েক যুগের কাঙ্খিত বিদ্যুৎ আশা অবশেষে পূরণ হলো।

রাজনগর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের অন্তেহরি ও মুজেফরপুর গ্রামে বিদ্যুৎ ছিল না। প্রায় ৪ যুগ আগে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাশিমপুর এলাকায় পাম্প হাউজ সম্পন্ন করে। পাম্প চালানোর জন্য মৌলভীবাজার সদর থেকে বিদ্যুৎ লাইন নেয়া হয় সেখানে। চোখের সমানে বিদ্যুৎ সুবিধা থাকলেও ওই এলাকার মানুষজন বিদ্যুৎ সুবিধা পাননি।

উল্লেখ্য, বিগত জোট সরকারের সময় সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম সাইফুর রহমান উপজেলা সদর থেকে ১৭ কিলোমিটার দূরে ফতেপুর ইউনিয়নে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিলেও বঞ্ছিতই থেকে যান ওই গ্রাম গুলোর সাধারণ মানুষ। পরে দেয়া হবে- এমন আশ্বাস দেয়া হলেও তা আর হয়নি। দীর্ঘ দিনের প্রচেষ্টার পর রাজনগরের অবহেলিত এ গ্রামে অবশেষে জ্বললো আলো। অন্তেহরি ও মুজেফরপুর গ্রাম রাজনগর উপজেলার হলেও ওই দুই গ্রামের বিদ্যুৎ লাইন রয়েছে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিসের আওতাধীন। এ দুই গ্রামে ৫২৯টি পরিবারকে বিদ্যুৎ দেয়া হয়।

বুধবার সন্ধ্যায় রাজনগর উপজেলা থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে কাউয়াদীঘি হাওরের বুকে গড়ে ওঠা এ গ্রামে বিদ্যুৎ লাইন সঞ্চালন উদ্বোধন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মৌলভীবাজার-৩ (সদর-রাজনগর) আসনের এমপি নেছার আহমদ। ফতেহপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নকুল চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মিছবাহুর রহমান, পল্লী বিদ্যুতের জিএম শিবু লাল বসু, মনসুরনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিলন বখত, ডিজিএম সুজিত কুমার বিশ্বাস, আখাইলকুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সেলিম আহমদ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ময়নুল ইসলাম খান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ফৌজি প্রমুখ।

সময়-জার্নাল/ ফরহাদ হোসাইন

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ