২০২০ সালকে হালকা প্রকৌশল বর্ষ পণ্য ঘোষণা

প্রকাশিতঃ ৮:১৯ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১২ মার্চ ২০

সময় জার্নাল ডেস্ক: হালকা প্রকৌশল খাতের ৪০ হাজার উদ্যোক্তা এবং ৮ লাখ শ্রমিকের কল্যাণসহ এই খাতের উন্নয়নের কথা বিবেচনা করে চলতি বছরকে হালকা প্রকৌশল বর্ষ পণ্য ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৮ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা ২০২০-এ এসএমই উদ্যোক্তাদের জন্য ডিজিটালখাতে অর্থায়ন এবং হালকা প্রকৌশল বর্ষ পণ্য ২০২০ বিষয়ে দু’টি সেমিনার আয়োজন করা হয়।

সেমিনারে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, উদ্যোক্তাদের দাবি অনুযায়ী হালকা প্রকৌশল শিল্প পার্ক স্থাপন বিষয়ে দ্রুত উদ্যোগ নেবে সরকার।

সেমিনারে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মোঃআসাদুল ইসলাম বলেন, সকারের নির্দেশনা মেনে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জামানত বিহীন ঋণ দিতে হবে, কোন অজুহাত গ্রহণযোগ্য নয়।

এসএমই পণ্য মেলা ২০২০-এ ১১ মার্চ বুধবার, বিকাল তিনটায় হালকা প্রকৌশল বর্ষ ২০২০ বিষয় সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প সচিব মোঃআবদুল হালিম।

সেমিনারের মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপক বিটাক পরিচালক ড. সৈয়দ মোঃইহসানুল করিম জানান, বিশ্বের প্রায় সাতলাখ কোটি ডলারের হালকা প্রকৌশল শিল্পের বাজারে বাংলাদেশের রপ্তানি মাত্র ৫১ কোটি ডলার।

হালকা প্রকৌশল পণ্যের রপ্তানির উপর শতকরা ১০ ভাগ নগদ সহায়তা এবং কৃষিযন্ত্র পাতি কেনাকাটায় ২৫ ভাগ ভর্তুকি দিয়ে এই খাতের উন্নয়নের চেষ্টা করছে সরকার।

হালকা প্রকৌশল খাতের ৪০ হাজার উদ্যোক্তা এবং ৮ লাখ শ্রমিকের কল্যাণসহ এই খাতের উন্নয়নের কথা বিবেচনা করে চলতি বছরকে হালকা প্রকৌশল বর্ষ পণ্য ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি বলেন, জাপান, চীন, কোরিয়া, তাইওয়ানসহ এশিয়ার অনেক উন্নত দেশেই হালকা প্রকৌশল শিল্প খাতকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পরিবেশবান্ধব হালকা প্রকৌশল শিল্প পার্ক স্থাপন এ খাতের উদ্যোক্তাদের দীর্ঘদিনের চাওয়া। সংশ্লিষ্ট সবার সাথে আলোচনা করে সরকার এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এছাড়া হালকা প্রকৌশল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে গবেষণা বাড়ানো এবং গবেষণার ফলাফল ছোট কারখানা পর্যন্ত পৌঁছে দেয়া ও শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়নে মনোযোগী হওয়ার আহবান জানান শিল্প প্রতিমন্ত্রী।

এর আগে সকাল ১০টায় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য ডিজিটাল মাধ্যমে অর্থায়ন নিয়ে সেমিনার আয়োজন করে এসএমই ফাউন্ডেশন।

সেমিনারে প্রধান অতিথি আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম বলেন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ দেয়ার ক্ষেত্রে কোন অজুহাত বা হয়রানি গ্রহণযোগ্য নয়। বরং সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের ঋণ দেয়ার ক্ষেত্রে সব ধরনের উদ্যোগ নিতে হবে ব্যাংকগুলোকে। সেই সাথে ঋণ আদায় করার দায়িত্বও ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর।

এক্ষেত্রে সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ ব্যাংকে নজরদারি করার পরামর্শও দেন তিনি।

এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃসফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো বক্তৃতা করেন ফাউন্ডেশনের পরিচালক পর্ষদের সদস্য রাশেদুল করীম মুন্না।

সেমিনারের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক জাতিসংঘের ক্যাপিটাল ডেভালাপমেন্ট ফান্ড-ইউএনসিডিএফ-এর ডিজিটাল বিষয়ক পরামর্শক মোঃআশরাফুল আলম বলেন, ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহারকরে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে।

উল্লেখ্য, ৮ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা আগামী ১৩ মার্চ ২০২০ পর্যন্ত চলবে। ২৯৬ জনক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা মেলায় ৩০৯টি স্টলে তাদের পণ্যের পসরা সাজিয়েছেন। সকাল দশটা থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত কোন প্রবেশমূল্য ছাড়া দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে।

 

সময় জার্নাল / সালেহ আহমেদ

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ