২৮ হাজার টাকা বালিশের কভারের দাম নিয়ে যা বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ ৯:৩৫ অপরাহ্ণ, বুধ, ২ অক্টোবর ১৯

নিউজ ডেস্ক: চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনায় (ডিপিপি) বিভিন্ন চিকিৎসা সরঞ্জাম ও যন্ত্রপাতির দাম অস্বাভাবিক দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ৭৫০ টাকার বালিশ ক্রয়ে ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ২৭ হাজার ৭২০ টাকা, আর ৫০০ টাকার বাজার মূল্যের একটি বালিশের কভারের দাম ধরা হয়েছে ২৮ হাজার টাকা। এমন আরও অনেক অসংগতি রয়েছে এই ডিপিপিতে। এর মধ্যে মাত্র ১৫ টাকার টেস্টটিউব ৫৬ হাজার টাকা, ২০ টাকার হ্যান্ড গ্লাভসের দাম ধরা হয়েছে ৩৫ হাজার টাকা।

বুধবার ‘নিরন্তর গবেষণা : উন্নততর চিকিৎসা ও শিক্ষার সোপান’ শীর্ষক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা দিবস – ২০১৯ উদযাপন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ সময় ডিপিপি’র অস্বাভাবিক দামের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, এই ডিপিপিতে ভুল হয়েছে। যারা এ ডিপিপির সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো গতকালই দেশে এসেছি। এটা অবশ্যই আমি দেখব। এ ডিপিপিটি সবেমাত্র প্রস্তাব আকারে গেছে। এ ধরনের একটি প্রস্তাব প্রায় ২ হাজার পেজের হয়। এতে হাজার হাজার আইটেম থাকে। সেখানে যদি কোনো ভুল হয়ে থাকে, পরিকল্পনা কমিশন এগুলোর বিষয়ে আমাদের বলেছে। এগুলো ঠিক করে দেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

ডিপিপি এখনও অনুমোদন হয়নি জানিয়েছে তিনি আরও বলেন, ”এসব ভুল যাচাই-বাছাই করে এটি প্রি-একনেকে অনুমোদন হবে। এরও পরে প্রকল্প পাসের জন্য একনেকে উঠবে। এখন প্রি-একনেকেই এটা অনুমোদন হয়নি। যেখানে ভুলভ্রান্তি হয়েছে, সেগুলো অবশ্যই ঠিক করে দেব।’

উন্নয়ন প্রকল্পে প্রস্তাব করা অস্বাভাবিক দাম ভুল ক্রমে চলে এসেছে দাবি করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যারা ডিপিপিটি প্রণয়ন করেছে, তাদের অবশ্যই আমরা দেখব। কেন তারা এখানে কিছু ভুল তথ্য দিল। আমরা মনে করি প্রস্তাবটা ভুল হয়েছে। এ ভুলটা যেন আগামীতে না হয়, সে ব্যবস্থা আমরা গ্রহণ করব।’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ